সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ০৬:৩২ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম:
২৯শে মে জাতীয় ওলামা মাশায়েখ সম্মেলন গণগ্রেফতার ও হয়রানী বন্ধ করুন: মামুনুল হক মানহানী ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করতে পারবেন: সুপ্রিমকোর্ট আইনজী ৩১৭ বছরের পুরনো মসজিদ উদ্বোধন করলেন আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী পাথরের ট্রাকে ২কোটি টাকার হেরোইন উদ্ধার – আটক২ সাংসদ বেনজীর আহমেদ করোনায় আক্রান্ত সাভারে জোর করে বের করে দেয়া ভাড়াটিয়াদের রক্ষা করলো পুলিশ আশুলিয়ায় আগুনে পুড়লো ১০টি দোকান। সোনারগাঁও রির্সোটে মাওলানা মামুনুল হক ও তার স্ত্রীকে হেনস্তাকারীদের শাস্তির আওতায় আনতে হবে। – হেফজতের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ যুবলীগ নেতার আস্তানায় দেহ ব্যবসা, পতিতা আটক রিকশায় যাওয়া যাবে বই মেলায় : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

শেষ বলের উত্তেজনায় চট্টগ্রামকে হারাল কুমিল্লা

সারাদেশ ডেস্ক ॥

বঙ্গবন্ধু বিপিএলে মঙ্গলবার জমজমাট লড়াই উপভোগ করল ক্রিকেটপ্রেমীরা। শেষ বলের উত্তেজনায় চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সকে ৩ উইকেটে হারাল কুমিল্লা ওয়ারিয়র্স। এদিন মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচটিতে চট্টগ্রামের দেয়া ১৬০ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শেষ বল পর্যন্ত খেলে জয় তুলে নেয় কুমিল্লা।

জয়ের জন্য শেষ ওভারে কুমিল্লার দরকার ছিল ১৬ রান, হাতে ছিল ৪ উইকেট। এসময় ক্রিজে ছিলেন ডেভিড মালান ও আবু হায়দার। বোলিংয়ে ছিলেন লিয়াম প্লানকেট। ওভারের প্রথম বলে সিঙ্গেল নেন মালান। দ্বিতীয় বলে চার মেরে দেন আবু হায়দার। তৃতীয় বলে ছক্কা হাঁকান তিনি। চতুর্থ বলে লেগ বাই সূত্রে আসে ১ রান। পঞ্চম বলে ১ রান নিয়ে দ্বিতীয় রান নিতে গিয়ে রান আউট হন মালান। শেষ বলে জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল ৩ রান। এসময় স্ট্রাইক প্রান্তে ছিলেন মুজির উর রহমান। উত্তেজনার এই পরিস্থিতিতে ৪ মেরে কুমিল্লার জয় নিশ্চিত করেন মুজিব। ৮ বলে ১২ করে অপরাজিত থাকেন আবু হায়দার। ৫১ বলে ৭৪ করে আউট হন মালান।

এই ম্যাচে জয় পেলে প্লে-অফ নিশ্চিত হয়ে যেত চট্টগ্রামের। কিন্তু হারের কারণে তাদের অপেক্ষা বাড়ল। ৯ ম্যাচ খেলে ১২ পয়েন্ট নিয়ে চট্টগ্রাম এখন পয়েন্ট টেবিলে শীর্ষে রয়েছে। ৮ ম্যাচ খেলে ৬ পয়েন্ট নিয়ে পঞ্চম অবস্থানে রয়েছে কুমিল্লা।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেটে ১৫৯ রান সংগ্রহ করে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। ব্যাটিংয়ে নেমে দারুণ সূচনা করেন চট্টগ্রামের দুই ওপেনার লেন্ডল সিমন্স এবং জুনায়েদ সিদ্দিকি। দুইজনে গড়েন ১০৩ রানের জুটি।

এই জুটি ভাঙ্গেন সৌম্য সরকার। ২ ছক্কা ও ৫ চারে ৩৪ বলের মোকাবেলায় ৫৪ রান করে সানজামুলকে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন সিমন্স। তারপর ৩৭ বলে ৬ চারে ৪৫ রান করে রানআউট হয়ে ফিরেন জুনায়েদ।

কিন্তু আর কোন ব্যাটসম্যান দাঁড়াতে পারেনি। শেষ দিকে জিয়াউরের ৪ ছক্কায় ২১ বলে ৩৫ রানের উপর ভর করে নির্ধারিত ওভার শেষে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৫৯ রান সংগ্রহ করে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ফল: ৩ উইকেটে জয়ী কুমিল্লা ওয়ারিয়র্স।

চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স ইনিংস: ১৫৯/৬ (২০ ওভার)

(সিমন্স ৫৪, জুনায়েদ সিদ্দিক ৪৫, ওয়ালটন ৯, বার্ল ২, নুরুল ৪, জিয়াউর ৩৪*, প্লানকেট ৪, পিনাক ০*; মুজিব উর রহমান ০/১৮, আবু হায়দার ০/১৭, আল-আমিন হোসেন ১/৪০, ডেভিড ওয়াইজ ১/২৬, সানজামুল ১/৩৩, সৌম্য ২/২০)।

কুমিল্লা ওয়ারিয়র্স ইনিংস: ১৬১/৭ (২০ ওভার)

(রবি ১৭, ভ্যান জিল ২২, মালান ৭৪, সৌম্য ৬, সাব্বির ১৮, ওয়াইজ ১, অঙ্কন ০, আবু হায়দার ১২*, মুজিব উর রহমান ৪*; রুবেল ২/১৬, রানা ১/৩১, নাসুম ০/১৮, প্লানকেট ১/৪৬, জিয়াউর ১/৩৬, বার্ল ১/৯)।

ম্যাচ সেরা: ডেভিড মালান (কুমিল্লা ওয়ারিয়র্স)।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved ©2020 jubokantho24.com
Design & Developed BY Masum Billah