মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ০৮:০৮ অপরাহ্ন

শিরোনাম:
রাবেতাতুল ওয়ায়েজীন বাংলাদেশ মাওলানা মামুনুল হকের পাশে থাকবে। গ্রেফতার ঝুঁকিতে হেফাজত নেতৃবৃন্দ : করণীয় কি? সৈয়দ শামছুল হুদা মসজিদে তারাবির নামাজে ২০ জনের বেশি নয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে কুরআন নাজিলের মাসে হিফজুল কুরআন ও ক্বেরাত বিভাগ খুলে দিন -আল্লামা মুফতি রুহুল আমীন ২৯শে মে জাতীয় ওলামা মাশায়েখ সম্মেলন গণগ্রেফতার ও হয়রানী বন্ধ করুন: মামুনুল হক মানহানী ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করতে পারবেন: সুপ্রিমকোর্ট আইনজী ৩১৭ বছরের পুরনো মসজিদ উদ্বোধন করলেন আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী পাথরের ট্রাকে ২কোটি টাকার হেরোইন উদ্ধার – আটক২ সাংসদ বেনজীর আহমেদ করোনায় আক্রান্ত সাভারে জোর করে বের করে দেয়া ভাড়াটিয়াদের রক্ষা করলো পুলিশ

নোয়াখালী চালাই আমি: সাংসদ একরামুল করিম

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই আবদুল কাদের মির্জা সম্পর্কে জনগণের সামনে প্রথম মন্তব্য করলেন নোয়াখালী-৪ আসনের সাংসদ ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ একরামুল করিম চৌধুরী।

সাংসদ একরামুল করিম চৌধুরী আজ শুক্রবার সুবর্ণচরে এক মতবিনিময় সভায় কাদের মির্জার প্রতি ইঙ্গিত করে বলেন, ‘সারা নোয়াখালীতে আমার জনপ্রিয়তা দেখে ওবায়দুল কাদের সাহেবের ভাই মির্জা কাদের সারা দিন-রাত বাঘ, বাঘ, বাঘ করতেছিল। সে প্রথম আমাকে দিয়ে শুরু করেছে। যাইতে যাইতে তাঁর ভাবি এবং ওবায়দুল কাদেরসহ বাংলাদেশের কোনো নেতা বাদ দেননি। শেষ পর্যন্ত নেত্রীকে নিয়েও বলেছে। সে পাগলকে সামলাতে গিয়ে কিছু কারণবশত কারও কারও সঙ্গে টেলিফোনে কারও কথা হইতেই পারে।’

এ সময় সাংসদ একরামুল করিম আরও বলেন, ‘গত ছয় দিন আমি ঢাকাতে ছিলাম। আমি নেত্রীকে কতগুলো মেসেজ পাঠিয়েছি। উনি মেসেজগুলো দেখেছেন। ঢাকায় নেত্রীর সাথে যিনি সব সময় থাকেন, তিনি আমাকে বললেন, “নেত্রী আপনাকে এত ভালো জানেন। আপনি কেন ঢাকায় ঘুরতেছেন।” আমি বলি, আমাদের কমিটিটা দরকার। তিনি আমার কাছে জানতে চান, “নোয়াখালী চালায় কে?” আমি বলি, নোয়াখালী চালাই আমি। তিনি আমাকে বলেন, “নেত্রী কি আপনাকে না চালাতে বলছে।” আমি বলি, না। তিনি আবার বলেন, “নেত্রী জানেন যে আপনিই চালাবেন নোয়াখালী। আপনি যাই (গিয়ে) নোয়াখালী চালাতে থাকেন”।’

শুক্রবার সকালে সুবর্ণচরের চরজব্বর থানার নিচতলার ফাঁকা জায়গায় দলীয় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন একরামুল করিম চৌধুরী। সভায় সুবর্ণচর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আইনজীবী ওমর ফারুক, চরআমান উল্যাহ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বেলায়েত হোসেন, চরক্লার্ক ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবুল বাসার আজাদ, সুবর্ণচর উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক আমিরুল ইসলাম রাজীব, উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক আবদুল্লাহ আল মামুন জাবেদ প্রমুখ।

‘সত্যবচনে’ আলোচিত কাদের মির্জা শুরু থেকেই নোয়াখালীর সাংসদ একরামুল করিম চৌধুরীর পাশাপাশি ফেনীর স্থানীয় সাংসদ নিজাম উদ্দিন হাজারী, দাগনভূঞা উপজেলা চেয়ারম্যান দিদারুল কবির, সোনাগাজী উপজেলা চেয়ারম্যান জহির উদ্দিন মাহমুদ ও ফেনী পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়র নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজীর বিরুদ্ধে বিষোদ্‌গার করে আসছেন।

ফেনীতে আওয়ামী লীগ নেতা আরজুর মৃত্যু অপরাজনীতির বহিঃপ্রকাশ
নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা ফেনী জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও আওয়ামী লীগের নেতা আযহারুল হক আরজুর মৃত্যুকে অপ্রত্যাশিত এবং এ মৃত্যু ফেনীর অপরাজনীতির বহিঃপ্রকাশ বলে মন্তব্য করেছেন। আজ শুক্রবার দুপুরের দিকে নিজের ফেসবুক আইডিতে পোস্ট করা শোকবার্তায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved ©2020 jubokantho24.com
Design & Developed BY Masum Billah