বৃহস্পতিবার, ০৬ মে ২০২১, ০১:১৯ অপরাহ্ন

শিরোনাম:
বেডে বেডে লাশ, আইসিইউতে তালা দিয়ে পালিয়েছেন ডাক্তার-নার্স-স্টাফরা ‘ফ্রি ফায়ার গেম’ নিয়ে দ্বন্দ্ব, ছুরিকাঘাতে তিন বন্ধু জখম গ্রাম-গঞ্জে বাসা-বাড়ি কিংবা মসজিদ মাদরাসা বানাতেও অনুমতি লাগবে সরকারকে ফাঁকি দেওয়া যায়, মৃত্যুকে নয় : কাদের হৃদয়বিদারক দৃশ্য, করোনা আক্রান্ত বাবাকে পানি দিতে গেলেও আটকাচ্ছেন মা! (ভিডিও) ভারতের বিধানসভা নির্বাচনে ১১২ মুসলিম প্রার্থীর জয় ‘আসতে পারে তৃতীয় ঢেউ, লকডাউনেও কাজ হবে না’ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর যা বললেন হেফাজতে ইসলামের নেতারা আবারও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বাসায় হেফাজত নেতারা তাণ্ডবের বিচার চেয়ে পদত্যাগ করা সেই হেফাজত নেতা গ্রেপ্তার

দেশের জনগণ নরেন্দ্র মোদীর আগমন চায় না : হেফাজত মহাসচিব আল্লামা নুরুল ইসলাম

হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব ও আন্তর্জাতিক তাহাফ্ফু‌জে খতমে নবুওয়তের সভাপতি আল্লামা নুরুল ইসলাম জেহাদী বলেছেন, স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আগমনের খবরে দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলিম সমাজ ক্ষুব্দ হয়েছে। দেশের জনগণ চায় না এমন একজন বিতর্কিত প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের সুবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করুক।

মঙ্গলবার (১৬ মার্চ) সংবাদমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন।

আল্লামা জেহাদী বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর উদযাপন করা হচ্ছে। স্বাভাবিকভাবেই বিদেশী রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানরা এতে অংশগ্রহণ করতে পারেন। এবং তা দেশের জন্য সম্মানজনক। কিন্তু মোদীর মত একজন মুসলমানদের শত্রুকে অতিথি করা কোনভাবেই উচিৎ হচ্ছেনা। মোদী ভারতের মুসলমানদের ওপর নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে। বাবরী মসজিদের জায়গায় রাম মন্দির নির্মাণ করছে মোদী সরকার। গুজরাটে মুসলিমদের ওপর গণহত্যা চালিয়েছে এই মোদী। গরু রক্ষার নামে মুসলিমদের পিটিয়ে মারছে মোদীর দলের লোকেরা। সীমান্তে বাংলাদেশীদের নির্বিচারে হত্যা করছে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষীরা। এতো কিছুর পরেও মুসলিম প্রধান দেশ বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠানে মোদীকে আমন্ত্রন জানানো দুঃখজনক। আমরা চাই সরকার অবিলম্বে মোদীর আমন্ত্রণ বাতিল করুক।

তিনি আরো বলেন, আমরা চাই সরকার স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠান শান্তিপূর্ণ ভাবে শেষ করুক। তাই সরকারের উচিৎ হবে মোদীর আমন্ত্রণ বাতিল করা। এতে করে দেশের শান্তিশৃঙ্খলাও বহাল থাকবে, অনুষ্ঠানও শান্তিপূর্ণ ভাবে সম্পন্ন হবে।

মোদী আসলে দেশের মানুষ ক্ষিপ্ত হবে। জনগণ ক্ষোভ প্রকাশ করতে মাঠে নেমে আসতে পারে। এটি সরকারের জন্যও সুখকর হবে না।

হেফাজত মহাসচিব বলেন, হেফাজতে ইসলাম এই দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষের ঈমানী চেতনার সংগঠন। হেফাজত অতীতে যেভাবে প্রতিটি ইসলাম ও দেশ বিরোধী কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে মাঠে সোচ্চার থেকেছে, আগামীতেও যে কোনো ইস্যুতে জনগণকে সাথে নিয়ে মাঠে থাকবে ইনশা আল্লাহ।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved ©2020 jubokantho24.com
Website maintained by Masum Billah