মায়ার পরশে অল্প সময় ; পেলাম অমূল্য নসীহত-শামসুদ্দোহা আশরাফী -

বুধবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০৩:৩১ পূর্বাহ্ন

মায়ার পরশে অল্প সময় ; পেলাম অমূল্য নসীহত-শামসুদ্দোহা আশরাফী

আজকের তাফসীর মাহফিল ছিল শায়েস্তাগঞ্জে। ৭ দিন ব্যাপী আয়োজিত ৭৫তম এ মাহফিলের মধ্যমনি খতীবে আজম আল্লামা ওলিপুরি হাফি.। প্রতিদিনই হুজুর এখানে সুনির্দিষ্ট বিষয়ের উপর আলোকপাত করেন।

এ গুরুত্বপূর্ণ প্রোগ্রামে আজ বাদ মাগরিব আমারও কিছু কথা বলার সুযোগ হয়৷ ” কোরঅানের আলোকে ইতিহাসের গুরুত্ব ও তাৎপর্য ” এ বিষয়ের উপর মূলত আলোকপাত করি।

যেহেতু স্টেজটা খতীবে আজম আল্লামা ওলিপুরি হাফি.র। তাই শুরু থেকেই অন্তরে খুব ভয় কাজ করছিল। তবু আল্লাহর উপর তাওয়াক্কুল করেই আলোচনা শুরু করি এবং আল্লাহর মেহেরবানী শেষ করি।

বয়ান শেষেই কতৃপক্ষ আল্লামা ওলিপুরি হাফি.র খেদমতে নিয়ে গেলেন। হুজুর কাছে ডেকে গুরুত্বপূর্ণ কিছু নসীহত করেন। তন্মধ্যে অন্যতম ছিল “মাওলানা বয়ানের ময়দানে যেহেতু আল্লাহ তায়ালা নিয়ে এসেছেন এটাকে মূল্যায়ন করবেন। এটা দ্বীনি খেদমতের এক বিশাল ময়দান। হেদায়েতের মাধ্যম। বর্তমান সময়ে এ ময়দানটা অল্প সংখ্যক লোকের কারণে বানিজ্য কেন্দ্রে পরিণত হয়ে গেছে। এটা মোটেও কল্যাণকর নয়। অধিক টাকা নিয়ে দর কষাকষি, বাড়াবাড়ি দ্বীনের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর মনে হচ্ছে। এতে ওয়াজ মাহফিলের মূল আবেগ ও মূল্যায়ন নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। আপনারা এ ব্যাপারে চোখকান খোলা রাখবেন। নিজেরা বেঁচে থাকবেন, অন্যদেরও বাঁচানোর ফিকির করবেন”।

হুজুরের ব্যথিত অন্তরের এ দরদী কথাগুলো আমার/আমাদের জীবনের জন্য অমূল্য রতন। পাথেয়।

আলহামদুলিল্লাহ,আজ ৫ বছরের বয়ানের ময়দানে কখনোই টাকা নিয়ে অহেতুক বাড়াবাড়ি করিনি। আগামীতেও করবো না,ইনশাআল্লাহ।

বিদায়ের আগ মুহুর্ত দেখা হলো মাওলানা কামরুল ইসলাম বিন ওলিপুরি হাফি.’র সাথে। আন্তরিকতা পূর্ণ সাক্ষাৎ,মেহমানদারী করলেন এবং পরবর্তীতে গাড়ি পর্যন্ত এগিয়ে দিলেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Design & Developed BY Seskhobor.Com