বেফাকের মুরুব্বীরা আমাকে বঞ্চিত ই করে গেলেন : মাওলানা উবায়দুর রহমান খান নদভী -

বুধবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০৩:৩৬ পূর্বাহ্ন

বেফাকের মুরুব্বীরা আমাকে বঞ্চিত ই করে গেলেন : মাওলানা উবায়দুর রহমান খান নদভী

তিন মাদ্রাসায় নিয়মিত পড়াই আজ ২৫ বছর। সারাদেশে অতিথি অধ্যাপক আছি অন্ত ৭ প্রতিষ্ঠানে।

,ত্রিশ বছর ধরে বেফাকের মুরব্বিদের হুকুমে বহু কাজ করে দিয়েছি। আজও করি।

একাধিক সভাপতি,সহসভাপতি ও মহাসচিব ওয়াদা করেছেন আমাকে বেফাকে নিবেন। ( এখন থেকে নাম ও বিবরণ উল্লেখ করবো)

দেশে প্রায় তেরো হাজার লোক বেফাকে সদস্য। একমাত্র আমাকেই অযোগ্য মনে হয়েছে। বয়স,অভিজ্ঞতা, অবদান বিবেচনায় আমার শুরা ও আমেলার সদস্য হওয়ার কথা ছিল। আমি কয়েকটি মাদরাসার সভাপতি, প্রধান মুহতামিম, মুহতামিম ও প্রতিনিধি হওয়া সত্বেও এবং বারবার ওয়াদা করেও কেউ কথা রাখেন নি।

সহসভাপতি বা মহাসচিবের কাজ দিলে সুন্দর করে আন্জাম দিতে কষ্ট হতোনা। আমার আব্বাজান ৩ মেয়াদ বেফাকের মহাসচিব ছিলেন। আমি দুনিয়ায় বহু কাজ দক্ষতার সাথে করছি।

দেশে বেফাকের কয়েক হাজার সদস্য। মুরব্বিরা আমাকে সদা দূরে সরিয়ে রেখে নিজেদের ওয়াদা নষ্ট করেছেন এবং পরস্পরকে দোষারোপ করে আমার কর্মদক্ষতাকে নিঃসন্দেহে বিনষ্ট করেছেন।

বেফাকে উপযুক্ত জায়গা করে না দিয়ে তারা আমার প্রতি চরম অন্যায় করেছেন। জানিনা বড়োরা কতটুকু কী করবেন। তবে আমি বঞ্চিত ও অবমূল্যায়নের মত এমন অসদাচরণের দেখা পেয়েছি যা দেখবো বলে আশা করিনি।

এর কোনো বিশ্লেষণ এইমূহূর্তে আমি দেবনা৷ ধারণা করি, নানাজন নিয়ে বড়দের অপারকতাটার হেতুগুলো এখন থেকে বলতে থাকবো। সব সংকট নিয়েই এখন কথা বলতে হবে ।

Please Share This Post in Your Social Media

Design & Developed BY Seskhobor.Com