বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১, ১১:১৪ অপরাহ্ন

শিরোনাম:
রাজশাহীতে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরের বিরুদ্ধে মামলা করলেন যুবলীগ নেতা হেফাজতের আরও দুই শীর্ষস্থানীয় নেতা গ্রেপ্তার মাছ ছিনতাই : থানায় অভিযোগ ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে ২০১৩ সালের ৫ মে শাপলা ট্রাজেডির মামলায় আল্লামা খুরশেদ আলম কাসেমি গ্রেফতার! ২০১৩ সালের ৫ ই মের মামলায় মুফতি সাখাওয়াত ও মাওলানা আফেন্দির ২১ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর মাওলানা আফেন্দি ও মুফতি সাখাওয়াত হোসেন রাজিকে ১০ দিনের রিমান্ড! মাওলানা আফেন্দি ও মুফতি সাখাওয়াত হোসেন রাজিকে ১০ দিনের রিমান্ড! আট বছর আগের মামলায় ৭ দিনের রিমান্ডে হেফাজত নেতা কোরবান আলী আরো এক মামলায় মাওলানা রফিকুল ইসলামের একদিনের রিমান্ডে লকডাউনকে ‘বৃদ্ধাঙ্গুলি’ দেখিয়ে অষ্টমীর স্নানে মানুষের ঢল

দক্ষিণখানে গ্রেফতার হচ্ছে না জাহাঙ্গীর হত্যা চেষ্টার আসামীরা, সন্দেহ পুলিশের দিকে !

নিজেস্ব সংবাদদাতা – প্রায় দুই বছর যাবৎ রাজউকের নিয়ম নীতি না মেনে , অনিয়মের সাথে নির্মাণ কাজ চালাচ্ছে রাজধানীর দক্ষিণখান গাওয়াইর স্কুল রোড অবস্থিত ইউরো- বাংলা অ্যাপার্টমেন্ট । ভবনটির সম্পর্কে এলাকাবাসী রয়েছে বিস্তর অভিযোগ । নির্মাণ কাজে নিরাপত্তা ঝুঁকি থাকায় বারবার অভিযোগ দিলেও কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি ইউরো-বাংলা কতৃপক্ষ।

মামলার সূত্রমতে , গত ২৪ ফেব্রুয়ারি সকালে বিল্ডিঙের কাজে আসে জাহাঙ্গীর হোসেন । সে মূলত এই বিল্ডিং এ মালিক পক্ষের নিয়োজিত কন্টাকটার রফিক এর দলে কাজ করত । বাদীর অভিযোগ বিকাল আনুমানিক ০৩ ঘটিকার সময় জাহাঙ্গীর তার পাওনা টাকা চায় কন্টাকটার রফিকের কাছে।কিন্তু রফিক জানায়, ভবনের মালিক এসেছে , পাওনা টাকা তার নিকট চাইতে জাহাঙ্গীরকে উস্কে দেয় । জাহাঙ্গীর পাওনা টাকা চাইতে মালিকের নিকট গেলে মালিক হারুনুর রশীদ বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে , জাহাঙ্গীরকে মারধর করে । বিল্ডিং মালিক টাকা রফিকের নিকট থেকে নিতে বলে । টাকা রফিকের নিকট চাইলেই বাধে ঝামেলা । এই নিয়ে রফিকের সাথে জাহাঙ্গীরের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয় । বিল্ডিংটির ৫ম তলায় বেলকুনিতে বিকেল তিনটায় কাজ করবার সময় পেছন থেকে রফিক ইচ্ছা করেই ধাক্কা দেয় জাহাঙ্গিরকে । জাহাঙ্গীরের ভাষ্য হত্যা করবার উদ্দেশ্যেই তাকে ধাক্কা দিয়ে নীচে ফেলে দেয় সে ।

উপড় থেকে নীচে পড়ে গেলে এলাকার কিছু পথচারী এবং কয়েকজন তাকে দ্রুত নিকটবর্তী কে,সি হাসপাতালে নিয়ে যায় । অবস্থার অবনতি হলে জাহাঙ্গীরের আত্মিয়-স্বজন তাকে জাতীয় পঙ্গু হাসপাতালে নিয়ে যায় । সেখানে তার চিকিৎসা হয় দীর্ঘ সময় । এই সময় অর্থাভাবে চিকিৎসায় ব্যয় বহনে অসুবিধায় পড়লে , জাহাঙ্গীরের পিতা পাওনা টাকার জন্য রফিকের কাছে যায় । রফিক বলে ” আমি টাকা দিতে পারি তবে তোমার ছেলেকে বলতে হবে , আমি ধাক্কা দেই নাই “। কারণ ইতিমধ্যেই চাউর হয়ে গেছে জাহাঙ্গীরের বাবা মামলা করতে পারে ।

বিল্ডিং এর আশপাশে ঘুরে আমাদের প্রতিনিধি এই ঘটনার সততা নিশ্চিত হয়েছে যে , রফিক কাজের বাহানায় নানান সময় গালমন্দ করত । মাঝে মাঝে তার কর্মচারীদের গায়েও হাত দিত বলে অভিযোগ পাওয়া যায় । তারা সকলেই দিনমজুর এই ভুক্তভোগির হত্যা চেষ্টার বিচার চান ।

উল্লেখ্য যে , গত২৪/০৩/২০২০ইং তারিখ জাহাঙ্গীরের পিতা আনোয়ার হোসেন নিজে বাদী হয়ে দক্ষিণখান থানায় একটি মামলা দায়ের করেন যাহার নং ৫১। মামলা করার পর ১ নং আসামী কন্টাকটার রফিক ও২ নং আসামী হারুনুর রশিদ মামলার বাদী আনোয়ার হোসেনকে দেখে নেওয়ার হুমকি দিচ্ছে বলে বাদী অভিযোগ করেন । মামলা হওয়ার ১ সপ্তাহ পরেও কোন আসামীকে পুলিশ গ্রেফতার করার সক্ষম হয়নি। উক্ত বিষয় সম্পর্কে মামলার আই,ও কে এম মাহামুদুল হাসান আমাদের প্রতিবেদককে জানান,আসামী পলাতক রয়েছে, ধরার চেষ্টায় আছি । আমাদের প্রতিবেদক পাল্টা প্রশ্ন করেন বাদি অভিযোগ করছেন আসামীরা নিজের বাড়ীতেই অবস্থান করে । আইও বলেন আমি যখন যাই তখন পাই না । এই “আইও যখন যান আসামীদের তখন পান না ” এমন কথাতেই সবায় তদন্তকারী কর্মকর্তার গাফিলতি খুজে পাচ্ছেন বলে জানান । অপরদিকে মামলা করায়, বাদীকে আসামীরা হুমকী ধমকী দিচ্ছে । থানার ওসির সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও একাধিকবার তার ফোন ব্যস্ত পাওয়া যায় । কি এক রহস্যজনক কারণে , তাদের গ্রেফতার করা হচ্ছে না এমন প্রশ্নে সংশ্লিষ্টরা অভিযোগ করেন , পুলিশ প্রশাসনের গাফিলতি ও গরিমশিতেই গ্রেফতার হচ্ছে না আসামীরা ।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved ©2020 jubokantho24.com
Website maintained by Masum Billah