‘আদর্শভিত্তিক লড়াইয়ে ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে তরুণ প্রজন্ম’

আনাস বিন ইউসুফের পর্যবেক্ষণ মতামত: যেকোন লড়াই-সংগ্রামে সমান্তরাল চিন্তা ও আদর্শিক ঐক্যের ভিত্তিতে এমন কিছু সহযোদ্ধা তৈরি হয় যারা লড়াইকে তার আপন লক্ষ্যপানে এগিয়ে নেয়ার ক্ষেত্রে মূল নিয়ামক হিসেবে কাজ করে। রাজনীতি, জাগরণ অভ্যুত্থান; এই বিষয়গুলোর সাথে চিন্তা ও আদর্শের ঐক্য একান্ত অপরিহার্য। আদর্শিক দূরত্ব কিংবা চিন্তার ভিন্নতা বহাল রেখে সঙ্ঘবদ্ধ সংগ্রামকে তার কাঙ্খিত গন্তব্য পর্যন্ত নিয়ে যাওয়া কখনোই সম্ভবপর নয়। গত কয়েকদিন যাবত আশরাফ মাহদী ভাইয়ের মুক্তি আন্দোলনে দেশের তরুণ সমাজ যে অভূতপূর্ব সাড়া দিয়েছে তা অবশ্যই কল্পনাতীত। সারা দেশের তরুণদের মধ্যে জাগরণ তৈরি হয়েছে। সকল অন্যায়, দালালী ও সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে ব্যাপ জনমত তৈরি হয়েছে। ক‌ওমী তরুণ প্রজন্ম ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে। ঘটনার শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত আশরাফ মাহদী ভাইয়ের জন্য অনেকেই যার যার সামর্থের আলোকে ভুমিকা রেখেছেন। অনলাইনে প্রতিবাদের ঝড় তোলার পেছনে বেশ কিছু মানুষ পর্দার অন্তরালে থেকে নিঃস্বার্থভাবে কাজ করেছেন। ইতিহাস অবশ্যই তাদেরকেও মনে রাখবে। আমার কাছে বিশেষভাবে নজর কেড়েছে এহসানুল হক এর উপস্থিতি। তিনি চলমান আন্দোলনের অন্যতম সৈনিক। শাইখুল হাদীস রহ. এর দৌহিত্র, জামিয়া রাহমানিয়ার শিক্ষক। তিনি আশরাফ মাহদী ভাই দুবাইয়ে আটকের পর তাকে মুক্তির জন্য সক্রিয় ছিলেন। দুবাইয়ের দীর্ঘ অপেক্ষার পর দেশে ফিরেন মাহদী। সেখানেও তাকে কঠিন বিড়ম্বনায় পড়তে হয়। প্রথম দিন বিমানবন্দরে দুপুর থেকে গভীর রাত পযর্ন্ত তিনি অবস্থান করেছেন এহসানুল হক ভাই। পরের দিন চট্টগ্রামেও তাকে দেখে সত্যিই অবাক হয়েছি। এহসান ভাই ও মাহদী ভাই দুজনকেই আমি কাছ থেকে চিনি। কাছে থেকে আমার উপলব্দি হলো, দুজনই রাজনীতিমনা ও দূরদর্শি। তাদের সম্পর্কের ভিত্তি-চিন্তা ও আদর্শের ঐক্য। চিন্তা ও আদর্শের মিল থাকলে অনেক দূরের মানুষও আপন হয়ে যায়। আর চিন্তার মিল না হলে রক্তের সম্পর্কের মানুষ কতটা দূরের হতে পারে সেটা তো আমরা প্রত্যক্ষই করছি। স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছি, ভবিষৎ আন্দোলন সংগ্রামে ইসলামী অঙ্কনের তরুণ প্রজন্মকে ঐক্যবদ্ধ করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে এহসানুল হক ও আশরাফ মাহদী ভাই। তাদের শিক্ষাগত যোগ্যতা, সাহস, পারিবারিক ঐতিহ্য সবই আছে। নিষ্ঠাবান ও সংগ্রামী মুরুব্বিদের পাশে থেকে মাঠ পর্যায়ে তারা প্রত্যাশিত জাগরণ তুলতে সক্ষম হবেন, এই আশা করি। বলাবাহুল্য, কওমি তরুণ প্রজন্ম যে আদর্শের ভিত্তিতে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করবে, তা অবশ্যই নববী আদর্শ হবে। আর যে অভিন্ন চিন্তা তাদেরকে এই বুদ্ধিবৃত্তিক লড়াইয়ের পথে এগিয়ে নিবে তা-ও হতে হবে বিশুদ্ধ তথা কুরআন সুন্নাহ সমর্থিত আক্বীদার মানদণ্ডে।