বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ০৮:৪৮ অপরাহ্ন

শিরোনামঃ
হেফাজতের মিছিলে কালিমা সংবলিত কালো ব্যানার: নাস্তিক্যবাদী মিডিয়ার চুলকানি মুসলিমদের হত্যার হুমকি দিয়ে ফরাসি মসজিদে ইসলামবিদ্বেষীদের চিঠি মাওলানা জুনায়েদ বাবুনগরী নাজিরহাট মাদ্রাসার মোতাওয়াল্লি নির্বাচিত ফ্রান্সের পণ্য বর্জন ও কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করতে হবে -আল্লামা মাহফুজুল হক সিএমএইচে এমপি আবু জাহির বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস যুক্তরাজ্য শাখার ভার্চুয়াল নির্বাহী সভা অনুষ্ঠিত.. অবশেষে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে নিন্দা জানিয়েছে সৌদি আরব ইসলামী আন্দোলনের দূতাবাস ঘেরাও কর্মসূচিতে পুলিশের বাধা বিশ্বজুড়ে পণ্য বর্জনের ডাকে প্রবল ঝুঁকিতে ফ্রান্সের অর্থনীতি বয়কট ফ্রান্স আন্দোলন: রেচেপ তায়েপ এর্দোয়ান ফরাসী পণ্য বর্জনের ডাক দিলেন

ইতিহাসের পাতায় হযরত মুয়াবিয়া (রা.)

ইহসানুল হক:

ইতিহাসের এক উজ্জ্বল নক্ষত্রের নাম হযরত আমিরে মুয়াবিয়া (রা.)।
ইয়াহুদী-খ্রিস্টানদের হৃদয়ে ঝড় তোলা ব্যক্তির নাম আমিরে মুয়াবিয়া।
খোলাফায়ে রাশেদীনের পর ইসলামের সবচেয়ে বড় খাদেমের নাম আমিরে মুয়াবিয়া।
বর্তমান যুগের সাধারণ মানুষরা আমিরে মুয়াবিয়ার ব্যক্তিত্ব, খ্যাতি, অবদান ও কৃতিত্ব সম্পর্কে হয়তো জানেই না।

তাঁর আসল ব্যক্তিত্বকে মুসলিম জাতির সামনে ফুটিয়ে তুলতে এখানে কিছু বৈশিষ্ট্য তুলে ধরা হলো।

১. তিনি ছিলেন রাসুল (সা.) এর প্রিয়তম একজন সাহাবী। রাসুল (সা.) যাকে উদ্দেশ্য করে বলেছিলেন যে উম্মতের সবচেয়ে বড় ধৈর্যশীল ব্যক্তির নাম মুয়াবিয়া।

২. রাসূল (সা.) যার জন্য দোয়া করেছিলেন- হে আল্লাহ, তুমি মুয়াবিয়াকে ‘হাদী’ অর্থাৎ হেদায়েত প্রাপ্ত ও ‘মাহদী’ অর্থাৎ হেদায়াতকারী বানাও।

৩. তিনি ছিলেন একাধারে রাসূল (সা.) এর শ্যালক এবং ভায়রাভাই। হযরত উম্ম হাবিবার ভাই এবং উম্মে সালমার বোনের স্বামী। এ দুজনেই রাসুল (সা.) এর স্ত্রী।

৪. জান্নাতের সুসংবাদপ্রাপ্ত জামায়াত ইসলামের প্রথম নৌ বাহিনীর প্রস্তুতকারক তিনি।

৫. তিনি ১৯ বছর গভর্নর এবং ২০ বছর পর্যন্ত সুবিশাল ইসলামী সাম্রাজ্যের অধিপতি ছিলেন। এত দীর্ঘ সময় খেলাফত কাল রাসূল (সা.) এর পরে আজ পর্যন্ত মুসলমানরা প্রত্যক্ষ করেনি।

৬. এত দীর্ঘ সময়ের খেলাফতকালে একজন ব্যক্তিও হযরত আমিরে মুয়াবিয়ার বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ উত্থাপন করে প্রতিবাদ করতে পারেনি।

৭. পবিত্র কাবা শরীফের গিলাফ দেওয়ার প্রবর্তকের নাম আমিরে মুয়াবিয়া।

৮. তিনিই সর্বপ্রথম ডাক ব্যবস্থা চালু করেন।

৯. তিনি রাসূল (স.) এর নির্দেশে স্বহস্তে কুরআন লিখেন এবং রাসূল (সা.) এর চিঠি লেখক ছিলেন এই মহান সাহাবী।

১০. যার নাম শুনলে ইয়াহুদী-খ্রিষ্টান সাম্রাজ্য থর থর করে কাঁপতো, সেই নামটি আমিরে মুয়াবিয়া।

১১. হযরত আলীর বিরুদ্ধে যুদ্ধে রোম সম্রাট হযরত মুয়াবিয়ার সহযোগী হওয়ার স্পর্ধা দেখালে তিনি দীপ্ত কন্ঠে জবাব দিয়েছিলেন- হে রুমের কুকুর, তুমি যদি হযরত আলীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করার দুঃসাহস দেখাও তাহলে আলীর সহযোগী যে ব্যক্তিটি সর্বপ্রথম তোমাদের বিরুদ্ধে অস্ত্র তুলে ধরবে সেই ব্যক্তিটির নাম মোয়াবিয়া।

১২. যার ব্যাপারে হযরত হাসান (রা.) স্পষ্ট ভাষায় ঘোষণা দিয়েছিলেন যে, মুয়াবিয়া আমার জন্য দুনিয়া এবং দুনিয়াতে যা কিছু আছে তা থেকে উত্তম।
এরকম অসংখ্য বৈশিষ্ট্যে ও শ্রেষ্ঠত্বের বর্ণনা করা যাবে।

কিন্তু ইয়াহুদী-খ্রিস্টানদের ক্রীড়নক শিয়া ও একদল নামধারী মুসলমানদের কলমে আজ ক্ষতবিক্ষত ইসলামের এই মহান সেবক।
ইয়াহুদী-খ্রিস্টানদের সাম্রাজ্য নাস্তানাবুদ করে দেওয়ায় তাঁরা ক্ষিপ্ত ও বিক্ষুব্ধ হয়ে এই বীরের বিরুদ্ধে অপপ্রচারে নেমেছে।
আর এতে রং লাগিয়ে বেড়াচ্ছে নামধারী মুসলিমরাও। শিয়া ও ইয়াহুদী খ্রিস্টানদের মিথ্যাচারকে বিশ্বাসযোগ্য করে উপস্থাপন করার অপচেষ্টা করছে কথিত ইসলামী আন্দোলনের নেতা মওদুদী সাহেবরা।

এই পোষ্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন।

Design & developed by Masum Billah