বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ০২:৪৩ পূর্বাহ্ন

শিরোনামঃ
বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস যুক্তরাজ্য শাখার ভার্চুয়াল নির্বাহী সভা অনুষ্ঠিত.. অবশেষে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে নিন্দা জানিয়েছে সৌদি আরব ইসলামী আন্দোলনের দূতাবাস ঘেরাও কর্মসূচিতে পুলিশের বাধা বিশ্বজুড়ে পণ্য বর্জনের ডাকে প্রবল ঝুঁকিতে ফ্রান্সের অর্থনীতি বয়কট ফ্রান্স আন্দোলন: রেচেপ তায়েপ এর্দোয়ান ফরাসী পণ্য বর্জনের ডাক দিলেন ফ্রান্সের তাগুতী শক্তি অচিরেই ইতিহাসের আস্তাকুঁড়ে নিক্ষিপ্ত হবে। আবার জেগেছে হেফাজত: শুক্রবার দেশব্যাপী বিক্ষোভের ডাক মুসলমানদের কটাক্ষ করে রীতিমতো খলনায়ক বনে গেছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট পাকিস্তানের একটি মাদরাসায় ভয়াবহ বিস্ফোরণ, ৭ তালিবুল ইলম শহীদ ৬০ মিনিটের সাক্ষাৎকারে ১৬টি মিথ্যা বলেছেন ট্রাম্প

বেফাকের বর্তমান মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হক: একজন মুখলিস কর্মবীরের সহজ-সরল এর সংক্ষিপ্ত জীবনী-১

মাওলানা মাহফুজুল হক। সময়ের প্রতিভাবান আলেমেদ্বীন। দেশের প্রতিনিধিত্বশীল আলেমদের একজন। উপমহাদেশের প্রখ্যাত হাদীস বিশারদ, আপোষহীন সিপাহসালার শাইখুল হাদীস আল্লামা আজিজুল হক রহ. এর এই সুযোগ্য সন্তান ইসলাম ও মুসলিম উম্মাহর পক্ষে প্রসংশনীয় ভূমিকা রেখে চলছেন। শিক্ষা-আন্দোলন থেকে শুরু করে সামাজিক, রাজনৈতিক প্রতিটি অঙ্গনে রয়েছে তার সরব পদচারণা।

মাওলানা মাহফুজুল হক ছাত্রজীবন থেকেই অত্যন্ত মেধাবী হিসেবে পরিচিত। সুশৃংখল জীবন-যাপন, কাজকর্মে নিয়মানুবর্তিতা ও আমল-আখলাকে অতুলনীয় হিসেবে সকল উস্তাদের কাছেই ছিলেন প্রিয়পাত্র। পড়শোনার সূচনা তৎকালীন শীর্ষ দ্বীনি বিদ্যাপিঠ লালবাগ জামিয়া কুরআনিয়ায়। পড়াশোনার মূল অংশ অধ্যায়ন করেন জামিয়া রাহমানিয়ায়। এরপর মাদারে ইলমি দারুল উলুম দেওবন্দ থেকে শিক্ষাজীবন সমাপ্ত করে জামিয়া রাহমানিয়াতেই শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। শিক্ষক হিসেবে নিয়োগের অল্প দিনেই সুখ্যাতি অর্জন করতে সক্ষম হন।

২০০১ -এ জামিয়া রাহমানিয়ার ক্রান্তিকালে তিনি নেতৃত্ব গ্রহণ করেন। ভাইস প্রিন্সিপাল হিসেবে কিছুদিন দায়িত্ব পালনের পর ২০০২ থেকে অত্যন্ত দক্ষতার সাথে জামিয়ার প্রিন্সিপাল হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। পড়াশোনার সর্বোচ্চ মান বজায় রেখে তালিম ও তরবিয়াতের পাশাপাশি ইসলাম ও মুসলিম উম্মাহর পক্ষে বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করায় জামিয়া রাহমানিয়া বিশেষভাবে আলোচিত। তিনি সেই ঐতিহ্যবাহী ধারাকে সমুন্নত রেখে জামিয়ার অগ্রযাত্রাকে আরও শাণিত করেছেন।

মাওলানা মাহফুজুল হকের কর্মের পরিধি আরও বিস্তৃত হয় ২০০৫ সনে। ওলামায়ে কেরামের সর্ববৃহত ঐক্যবদ্ধ প্লাটফর্ম বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়ার যুগ্ম-মহাসচিব হিসেবে নির্বাচিত হন। কর্মতৎপর যুগ্ম-মহাসচিব হিসেবে দীর্ঘ এক যুগ অবধি বেফাকের প্রতিটি কর্মসূচিতে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখছেন। মাদরাসা শিক্ষাব্যবস্থার উন্নতি, নেসাব সংস্কার, কওমি সনদের স্বীকৃতি, কওমি কমিশন থেকে নিয়ে প্রতিটি ধাপেই রয়েছে তার সরব অংশগ্রহণ। এদেশের লক্ষ লক্ষ কওমি মাদরাসা ছাত্র শিক্ষকদের আশা আকাক্সক্ষার প্রতীক বেফাক যাদের অক্লান্ত পরিশ্রমের উপর ভর করে আজকের এই অবস্থানে এসেছে তাদের মধ্যে তিনি অন্যতম।

আশির দশকে জামিয়া মুহাম্মদিয়া ও জামিয়া রাহমানিয়া প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে মোহাম্মদপুর এলাকায় মাদরাসা-মসজিদ প্রতিষ্ঠা ও আলেম ওলামাদের যে সমাগম শুরু হয়েছিলো, সময়ের ব্যবধানে তা ক্রমান্নয়ে বৃদ্ধিই পেয়েছে।

বর্তমানে মোহাম্মদপুরে মাদরাসার সংখ্যা ত্রিশের অধিক। মাদরাসাগুলোর পরস্পর সম্পর্ক উন্নয়ন, প্রতিষ্ঠানের উন্নতি ও ঐক্যবদ্ধ অবস্থান সৃষ্টির জন্য প্রতিষ্ঠা হয়েছিল ইত্তেফাকুল মাদারিসিল কওমিয়া মুহাম্মদপুর। গত এক দশকে ইত্তেফাক তার সফলতার পথে অনেক দূর এগিয়ে গেছে। ঐক্যবদ্ধ পরীক্ষায় অংশগ্রহণ এবং গুরুত্বপূর্ণ যে কোনো ইস্যুতে অভিন্ন কর্মসূচি পালনের মাধ্যমে সারা ঢাকায় আলোড়ন সৃষ্টি করেছে উত্তেফাক। ইত্তেফাক গঠন এবং প্রতিটি কর্মসূচি সফল বাস্তবায়নের পিছনে অন্যতম কারিগর তিনি।—দ্বিতীয় পর্ব আসবে “ইনশাআল্লাহ”

এই পোষ্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন।

Design & developed by Masum Billah