বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ০২:১০ পূর্বাহ্ন

শিরোনামঃ
বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস যুক্তরাজ্য শাখার ভার্চুয়াল নির্বাহী সভা অনুষ্ঠিত.. অবশেষে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে নিন্দা জানিয়েছে সৌদি আরব ইসলামী আন্দোলনের দূতাবাস ঘেরাও কর্মসূচিতে পুলিশের বাধা বিশ্বজুড়ে পণ্য বর্জনের ডাকে প্রবল ঝুঁকিতে ফ্রান্সের অর্থনীতি বয়কট ফ্রান্স আন্দোলন: রেচেপ তায়েপ এর্দোয়ান ফরাসী পণ্য বর্জনের ডাক দিলেন ফ্রান্সের তাগুতী শক্তি অচিরেই ইতিহাসের আস্তাকুঁড়ে নিক্ষিপ্ত হবে। আবার জেগেছে হেফাজত: শুক্রবার দেশব্যাপী বিক্ষোভের ডাক মুসলমানদের কটাক্ষ করে রীতিমতো খলনায়ক বনে গেছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট পাকিস্তানের একটি মাদরাসায় ভয়াবহ বিস্ফোরণ, ৭ তালিবুল ইলম শহীদ ৬০ মিনিটের সাক্ষাৎকারে ১৬টি মিথ্যা বলেছেন ট্রাম্প

প্রধানমন্ত্রিত্বের জন্য প্রয়োজনীয় গরিষ্ঠতা আনোয়ার ইব্রাহিমের

যুবকণ্ঠ ডেস্ক;

মালয়েশিয়ার রাজার সঙ্গে দেখা করে প্রধানমন্ত্রিত্বের জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যাগরিষ্ঠতার প্রমাণ দিয়েছেন দেশটির বিরোধীদলীয় নেতা আনোয়ার ইব্রাহিম। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সকালে রাজপ্রাসাদে রাজা আল সুলতান আবদুল্লাহ রিআয়াতুদ্দীন আল-মুস্তফা বিল্লাহ শাহ-এর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন আনোয়ার। পরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি জানান, রাজার কাছে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেওয়া হয়েছে। তিনি রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেবেন।

সংবিধান অনুযায়ী, মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী হতে দেশটির ২২২ আসনের পার্লামেন্টে ১১২ জন এমপি-র সমর্থন প্রয়োজন। তবে আনোয়ার ইব্রাহিম জানিয়েছেন, তার প্রতি ১২০ জনেরও বেশি এমপি-র সমর্থন রয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে আনোয়ার বলেন, ১২০ জনেরও বেশি এমপি আমার সঙ্গে রয়েছেন। তবে রাজা আগামী কয়েক দিনের মধ্যে বিষয়টি নিয়ে রাজনৈতিক দলগুলোর প্রধানদের সঙ্গে কথা বলবেন। তাই আমাদের ধৈর্য ধারণ করে রাজার সিদ্ধান্তের জন্য অপেক্ষা করতে হবে। সংবাদমাধ্যম মালয়েশিয়াকিনি জানিয়েছে, এরইমধ্যে বিষয়টি নিয়ে আলোচনার জন্য রাজপ্রাসাদের আমন্ত্রণ পেয়েছেন ডিএপি এবং এমআইসি-এর মতো দলগুলোর নেতারা।

বিভিন্ন দলের নেতারা অবশ্য আনোয়ারের এ উদ্যোগকে রাজনৈতিক কার্ড হিসেবে দেখছেন বলে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম দ্য স্টার। তবে শেষ পর্যন্ত সংখ্যাগরিষ্ঠতার প্রমাণ দিতে সমর্থ হলে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী মুহিউদ্দিন ইয়াসিনকে হটিয়ে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নিতে সমর্থ হবেন ঝানু এ রাজনীতিক। আনোয়ার ইব্রাহিমের দাবি, তার প্রতি সংখ্যাগরিষ্ঠ আইনপ্রণেতার সমর্থন থাকার অর্থ হচ্ছে জনগণ তাকে সরকার গঠনের জন্য সমর্থন দিয়েছে। তবে কতজন আইনপ্রণেতার সমর্থন পেয়েছেন সুনির্দিষ্ট করে তা জানানতি তিনি।

২০১৮ সালের মে অনুষ্ঠিত নির্বাচনের পর দুটি সরকার গঠিত হলেও মালয়েশিয়ার রাজনৈতিক টানাপড়েনের অবসান হয়নি। আনোয়ার ইব্রাহিমের সমর্থন নিয়ে ওই নির্বাচনে ক্ষমতায় আসেন পাকাতান হারাপান জোট নেতা ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ। তবে ২০২০ সালের মার্চে জোটটির বেশ কয়েকজন আইনপ্রণেতা মুহিউদ্দিন ইয়াসিনকে সমর্থন দিলে পতন ঘটে মাহাথির সরকারের। এখন মুহিউদ্দিন ইয়াসিনকে হটাতে সমর্থ হলে আনোয়ার ইব্রাহিম হবেন এক বছরের মধ্যে মালয়েশিয়ার তৃতীয় প্রধানমন্ত্রী।

এই পোষ্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন।

Design & developed by Masum Billah