মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০৩:৩২ পূর্বাহ্ন

শিরোনামঃ
ইসলামের দৃষ্টিতে মূর্তি ও ভাস্কর্য ভাস্কর্য না করে স্মৃতি মিনার করুন, তাতে বঙ্গবন্ধুর আত্মা শান্তি পাবে : মুফতী ফয়জুল করীম মহাখালীতে সাততলা বস্তিতে আগুন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী হচ্ছেন জামালপুর-২ আসনের এমপি ফরিদুল হক খান মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ কে অনতিবিলম্বে নিষিদ্ধ ঘোষণা করতে হবে: সম্মিলিত কওমী প্রজন্ম ব্রাহ্মণবাড়িয়া ইসলামে মূর্তি ও ভাস্কর্য অবৈধ: ড. ইউসুফ আল-কারযাভী ভাস্কর্য ও মূর্তির অপব্যাখ্যাকারীরা হক্কানী আলেম হতে পারে না : বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন নামাজরত অবস্থায় ইমামের মৃত্যু উগ্রবাদী ও পাকিস্তানপন্থীরা এখন হেফাজতের নেতৃত্বে: মাওলানা জিয়াউল হাসান সময় এসেছে ওআইসির নেতৃত্বে সর্বভারতীয় মুসলিম দল গড়ার

ফ্রান্সকে রাজনৈতিকভাবে বয়কটের আহ্বান সৈয়দ শামছুল হুদা

বাংলাদেশের লক্ষ লক্ষ মানুষ রাজপথে নেমে ফ্রান্স এর জঘন্যতম ইসলামবিদ্বেষের প্রতিবাদ করে যাচ্ছেন। কিন্তু এখনও পর্যন্ত বাংলাদেশের সরকার নিজেদেরকে মুসলমান দাবী করা সত্ত্বেও ফ্রান্সের এহেন ঘৃন্য কাজের রাষ্ট্রীয়ভাবে নিন্দা জানায়নি। এখনো জাতীয় সংসদে ফ্রান্সের এই ঘৃণিত কাজের জন্য নিন্দা প্রস্তাব পাস করেনি। এখনো সরকার ফ্রান্স এর রাষ্ট্রদূতকে ডেকে বাংলাদেশের মানুষের অনুভূতি জানিয়ে দেয়নি।
আমাদের দেশের ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ ফ্রান্সের ঘৃণ্য কাজ এর নিন্দা জানিয়ে মুসলিম উম্মার সাথে তারা কোন প্রকার সংহতি প্রকাশ করেনি। এখনো বাংলাদেশের কোন পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে ফ্রান্সের বিরোধিতা করেনি। এটা আমাদের জন্য অন্যতম জাতীয় ব্যর্থতা।

প্রশ্ন করতে ইচ্ছে করে এদেশের সরকার এদেশের গণমানুষের চাওয়া পাওয়ার কোন মূল্য কেন দিচ্ছে না? ফ্রান্সের বর্তমান অপরাধ একটি রাষ্ট্রীয় অপরাধ। এটা কোন ব্যক্তিগত অপরাধ নয়। সুতরাং বাংলাদেশের সরকার যদি নিজেদেরকে মুসলিম দাবি করে, নিজেদের অন্তরে যদি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর প্রতি সামান্যতম ভালোবাসা অনুভব করে, তাহলে অবশ্যই সরকারকে রাষ্ট্রীয়ভাবে ফ্রান্সের ঘৃণিত কাজ এর নিন্দা জানাতে হবে।

সরকারিভাবে ফ্রান্সের নিন্দা না জানালে বাংলাদেশের কোটি মানুষের মিছিল এর কোন মূল্য থাকে না। আমি মনে করি দেশের তৌহিদি জনতার উচিত সরকারের ওপর প্রচণ্ড রকম চাপ সৃষ্টি করা, যাতে করে সরকার অবিলম্বে পদক্ষেপ গ্রহণে বাধ্য হয়।

ফ্রান্স এর উদ্ধত্য দমন করতে চাইলে সারা বিশ্বের সকল মুসলমানদের এক হওয়া উচিত। বিশেষ করে সারা বিশ্বের ৫৭টি মুসলিম স্বাধীন রাষ্ট্র রয়েছে, তারা যদি সত্যিই নিজেদেরকে মুসলিম স্বাধীন রাষ্ট্রের মালিক মনে করে তারা যেন অবশ্যই ফ্রান্সের এ ঘৃণ্য কাজের নিন্দা জানাতে এগিয়ে আসে।

ফ্রান্সকে যেমন অর্থনৈতিকভাবে বয়কট করতে হবে। তেমনি ফ্রান্সকে সাংস্কৃতিক-রাজনৈতিকভাবেও সারা বিশ্বের মুসলমানদেরকে মোকাবেলা করতে এগিয়ে আসতে হবে। এটা অসম্ভব কিছু নয়। যদিও ফ্রান্সের সামরিক শক্তি, অর্থনৈতিক শক্তি অনেক মজবুত। কিন্তু অতীতে অনেক মজবুত রাষ্ট্রই এমন অহংকারের কারণে, উদ্ধত্যপূর্ণ আচরণের কারণে ধ্বংস হয়ে গিয়েছে।

এছাড়া এটা আমাদের বিশ্বাস যে, প্রিয়নবী মুহাম্মাদুর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর শানে বেয়াদবি করে ঔদ্ধ্যত্বপূর্ণ আচরণ করে এ পর্যন্ত পৃথিবীর অনেক শক্তি টিকে থাকতে পারেনি, ইনশাআল্লাহ ফ্রান্সও এমন উদ্ধত্য আচরণ করে রাষ্ট্রীয় দাম্ভিকতা নিয়ে টিকে থাকতে পারবে না।

২৯.১০.২০২০

এই পোষ্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন।

Design & developed by Masum Billah