বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ০৫:৪৫ পূর্বাহ্ন

শিরোনামঃ
চরমোনাই পীর ও মামুনুল হকের কিছু হলে তৌহিদী জনতা বসে থাকবে না মাওলানা মামুনুল হকের বিরুদ্ধে অপপ্রচার ও ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে গাজীপুরে যুব মজলিসের বিক্ষোভ ময়মনসিংহে যুব মজলিসের বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত!! মামুনুল হক যে বক্তব্য দেন তা রাষ্ট্রদ্রোহিতার শামিল: রাব্বানী মাস্কের হাটে কারও মুখে মাস্ক নেই কেন রাজধানীর মহাখালীর সাততলা বস্তির আগুনে পুড়ে গেছে ২০০ ঘর ও ৩৫টির বেশি দোকান মুফতি ফয়জুল করীম ও মাও. মামুনুল হকের কিছু হলে তৌহিদী জনতা বসে থাকবে না: মুফতি আবদুল্লাহ ইয়াহইয়া “কথিত ‘মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ’ কর্তৃক ওলামায়ে কেরামদেরকে বিষোদগার ও ওয়াজ মাহফিলে বাধা দেওয়ার প্রতিবাদে মানববন্ধন” ইসলামের দৃষ্টিতে মূর্তি ও ভাস্কর্য ভাস্কর্য না করে স্মৃতি মিনার করুন, তাতে বঙ্গবন্ধুর আত্মা শান্তি পাবে : মুফতী ফয়জুল করীম

মহানবী (স)-কে অবমাননা: ফ্রান্সের পক্ষ নিল আমিরাত

মানবতার মুক্তির দূত মহানবী হযরত মুহাম্মাদ (স)-কে নিয়ে ফরাসি ম্যাগাজিন শার্লি এবেদোয় অবমাননাকর কার্টুন চাপানোর পর সৃষ্ট পরিস্থিতিতে ফ্রন্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাকরন যে ইসলামভীতি ছড়িয়ে বক্তব্য দিয়েছেন তার পক্ষে অবস্থান নিয়েছে সংয়ুক্ত আরব আমিরাত।

জার্মান দৈনিক ডাই ওয়েল্ট-কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে আমিরাতের উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনোয়ার গারগাশ ম্যাকরনের পক্ষে সমর্থন দিয়ে বলেন, মুসলমানদের আরো বেশি ‘সংমিশ্রণ’ দরকার। তিনি বলেন, “প্রেসিডেন্ট ম্যাকরন কী বলছেন তা মুসলমানদের তা খেয়াল করে শোনা উচিত। পাশ্চাত্যে তিনি মুসলমানদের একঘরে করতে চান নি বরং তিনি যা বলেছেন তা সম্পূর্ণ সঠিক।” গারগাশ বলেন, পশ্চিমা সমাজে মুসলমানদেরকে আরো ভালোভবে মিশতে হবে।

ফ্রান্সে মুসলমানদের বসবাসকে ফরাসি প্রেসিডেন্ট খুব একটা ভালো চোখে দেখছেন না- এমন ধারণা আনোয়ার গারগাশ নাকচ করে দেন।

গত দুই মাসে বিভিন্ন সময় ফরাসি প্রেসিডেন্ট ম্যাকরন বিশ্বের ২০০ কোটি মুসলমানের ধর্ম ইসলামকে আক্রমণ করেছেন। গত সেপ্টেম্বর মাসে তিনি মহানবী (স)-কে নিয়ে অবমাননাকর কার্টুন ছাপানোর পক্ষে বক্তব্য রাখেন। এছাড়া, গত ২ অক্টোবর ম্যাকরন বলেন, সারা বিশ্বে ইসলাম সংকটের মধ্যে রয়েছে। ফ্রান্সের মূল্যবোধের সঙ্গে মাননসই করে তিনি ইসলামের সংস্কার করবেন বলেও ঘোষণা করেন।

এই পোষ্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন।

Design & developed by Masum Billah