বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ০৫:৩৭ পূর্বাহ্ন

শিরোনামঃ
চরমোনাই পীর ও মামুনুল হকের কিছু হলে তৌহিদী জনতা বসে থাকবে না মাওলানা মামুনুল হকের বিরুদ্ধে অপপ্রচার ও ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে গাজীপুরে যুব মজলিসের বিক্ষোভ ময়মনসিংহে যুব মজলিসের বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত!! মামুনুল হক যে বক্তব্য দেন তা রাষ্ট্রদ্রোহিতার শামিল: রাব্বানী মাস্কের হাটে কারও মুখে মাস্ক নেই কেন রাজধানীর মহাখালীর সাততলা বস্তির আগুনে পুড়ে গেছে ২০০ ঘর ও ৩৫টির বেশি দোকান মুফতি ফয়জুল করীম ও মাও. মামুনুল হকের কিছু হলে তৌহিদী জনতা বসে থাকবে না: মুফতি আবদুল্লাহ ইয়াহইয়া “কথিত ‘মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ’ কর্তৃক ওলামায়ে কেরামদেরকে বিষোদগার ও ওয়াজ মাহফিলে বাধা দেওয়ার প্রতিবাদে মানববন্ধন” ইসলামের দৃষ্টিতে মূর্তি ও ভাস্কর্য ভাস্কর্য না করে স্মৃতি মিনার করুন, তাতে বঙ্গবন্ধুর আত্মা শান্তি পাবে : মুফতী ফয়জুল করীম

এ কাউন্সিল সম্পূর্ণ অবৈধ এবং আমরা তা প্রত্যাখ্যান করছি: মঈনুদ্দীন রুহী

যুবকণ্ঠ ডেস্ক;

দেশের বৃহৎতম অরাজনৈতিক সংগঠন হেফাজত ইসলাম বাংলাদেশের আমির নির্বাচিত হয়েছেন আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী। মহাসচিব নির্বাচিত হয়েছেন আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী।

তবে এই নবনির্বাচিত কমিটিকে প্রত্যাখ্যান করেছে আল্লামা আহমাদ শফীপুত্র আনাস মাদানী, মঈনুদ্দিন রুহী ও তাদের অনুসারীরা।

মঈনুদ্দিন রুহী বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে বলেন, তারা একতরফাভাবে সম্মেলন করার উদ্যোগ নিয়েছে এবং তাতে হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় কমটির ৬৫ জন নেতাকে আমন্ত্রণই জানানো হয়নি।

আমরা এই সম্মেলনকে অগণতান্ত্রিক ও অবৈধ মনে করি। সুতরাং এ কাউন্সিল সম্পূর্ণ অবৈধ এবং আমরা তা প্রত্যাখ্যান করছি।

আজিজুল হক ইসলামবাদী এর জবাবে বলেছেন, “ওনাদের সবাইকে দাওয়াত করার সিদ্ধান্ত ছিল। কিন্তু ওনারা দাওয়াত পাওয়ার আগেই হেফাজতের বিরুদ্ধে বিভিন্ন মিডিয়ায় বিভিন্ন বক্তব্য দিয়েছেন।

বিভিন্ন কারণে ওনারা মিটিং-এ হাজির হওয়ার পরিবেশ নষ্ট করে ফেলেছেন। সেই কারণেই হয়ত ওনারা মিটিং-এ উপস্থিত হননি। হেফাজতে ইসলামের সম্মেলন সবার জন্য উন্মুক্ত ছিল।”

এদিকে হেফাজতে ইসলামের নতুন কমিটি প্রত্যাখ্যানকারী অংশটি সিদ্ধান্ত নিতে আগামী শনিবার ঢাকায় আলোচনায় বসছে।

এই পোষ্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন।

Design & developed by Masum Billah