বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১১:২৫ অপরাহ্ন

শিরোনামঃ
‘বাজার-ঘাটে মুখে মাস্ক নেই, মসজিদে না পরে আসলি যত সমস্যা’ বিশ্বে একদিনে আবারো সর্বোচ্চ প্রাণহানি উইঘুর মুসলিমদের নির্যাতিত বলায় পোপকেও ছাড় দেয়নি চীন আমার কণ্ঠ চেপে ধরলেও মূর্তি ও ভাস্কর্যের বিরুদ্ধে বলেই যাবো: মাওলানা মামুনুল হক আল্লামা আহমদ শফী রহ. পরিষদে মূসা সভাপতি ও রাজী সেক্রেটারী জেনারেল নির্বাচিত করোনায় আক্রান্ত পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং পররাষ্ট্র সচিব চরমোনাই পীর ও মামুনুল হকের কিছু হলে তৌহিদী জনতা বসে থাকবে না মাওলানা মামুনুল হকের বিরুদ্ধে অপপ্রচার ও ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে গাজীপুরে যুব মজলিসের বিক্ষোভ ময়মনসিংহে যুব মজলিসের বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত!! মামুনুল হক যে বক্তব্য দেন তা রাষ্ট্রদ্রোহিতার শামিল: রাব্বানী

অসুস্থ দায়ীর কাজের ফিরিস্তি

তানভীর তানজিম

ইমরান হুসাইন হাবিবী। একজন তরুণ সেবক, দায়ী ও শিক্ষাবিদ। একজন মানবতা হিতৈষী খাদেম। বয়সে তরুণ। টগবগে রক্ত দেহপল্লবে। মেধা তীক্ষ্ণ ও চৌকষ। শরীরও সুঠাম ও সবল। চিন্তায় ভরপুর তারুণ্য ও কর্মচঞ্চলতা।
এই লোকটি ক’দিন যাবত অসুস্থ। বিছানায় পড়ে আছে। হাসপাতালে ছিল কয়েকদিন। দিন কয়েক হলো বাসায় ফিরছে। শরীরটা এখনও আগের মতো চঞ্চল হয়নি। উদ্দমতা ফিরতে সময় লাগবে আরো সপ্তাহখানেক। অথচ এই সময় তার থাকার কথা ছিল কুড়িগ্রাম দিনাজপুর লালমনিরহার ও বরগুনার অসহায় পল্লীতে। অসহায় শীতার্ত মানুষের শীতবস্ত্র বিতারণের প্রোগ্রাম ছিল উত্তরবঙ্গের বস্ত্রহীন মানুষের দ্বারে দ্বারে। সেই লোকটা আজকে বিছানায় পড়ে আছে। দুদিন আগে গিয়ে ছিলাম তাকে দেখতে। দেখে ও জেনে অবাক হলাম। আশ্চার্য হলাম তার কাজ দেখে। বিছানায় শুয়েই তিনি দৌড়ঝাঁপ করছেন দেশের উত্তর, দক্ষিণ ও পার্বত্য অঞ্চলের বিভিন্ন পথেপ্রান্তে। কিভাবে? তাহলে শুনুন সেই কাহিনী।

প্রশ্ন : কেমন আছেন?
উত্তর : আলহামদুলিল্লাহ। আল্লাহ পাক অনেক অনেক ভালো রেখেছেন। শুকরিয়া
প্রশ্ন : এখন শরীরের কি অবস্থা। অপারেশন কি ভালোভাবে হয়েছে?
উত্তর : আলহামদুলিল্লাহ ভাই, অপারেশনটা ভালোভাবেই হয়েছে। শরীর এখন সুস্থতার দিকে। হয়তো অল্পকদিনেই বেশ সেরে উঠবো!

প্রশ্ন : আমরা আপনাকে একজন দায়ী হিসেবেই জানি। দায়ির তো কাজ মাঠে ময়দানে। মানুষের দ্বারে দ্বারে। এই যে এখন, আপনি কাজ ছাড়া বিছানায় পড়ে আছেন, সময়গুলো কীভাবে পার করছেন।
উত্তর : আমি নিজেকে কখনো দায়ী দাবিতে করতে পারি না। আসলে দায়ী তো অনেক বড় জিনিস। তবে আমি মানুষের খেদমত করার চেষ্টা করি। আল্লাহর রহমতে আপনাদের দোয়ায় কিছু কিছু খেদমত করতে পারছি। বলছিলেন এই সময়গুলো কিভাবে পার করছি? যদি আমাকে দায়ি ভাবেন, তাহলে বলুন দায়িদের কি নিস্তার আছে? নেই। অপারেশনের আগ থেকেই কাজে ছিলাম। অপারেশনেও কাজের খবর রাখছি। যখন আমার অর্ধশরীর অবস ছিল তখনো আমি কাজের খবর রাখছি। ঠাকুরগাঁয়ে একটি মসজিদ নির্মাণাধীন । এই বিছানায় শুয়ে শুয়ে ওই নির্মাণ কাজের তদারকি করছি।
প্রশ্ন : আপনি এই শরীর নিয়ে কাজের তদারকি করছেন?
উত্তর : হুম, ভাই। কি আর করা। শরীর অসুস্থ বলে কাজকে থামিয়ে রাখার তো কোন যুক্তি নেই। তাই বিছানায় শুয়ে শুয়ে বিভিন্ন এলাকায় সাথীদের মাধ্যমে কাজ গুলো আঞ্জাম দিচ্ছি।
প্রশ্ন : এখন হাতে কয়টি কাজ আছে?
উত্তর : কাজটি কি হাতে গোনে গোনে করা যায়! মাঠে থাকি দাতারা পাঠাই কাজ করতে থাকি। এখন বিছানায় শুয়ে শুয়ে পঞ্চগড়ে চারটি কুড়িগ্রামে দুটি কুষ্টিয়ার একটি টিউবয়েলের কাজ চলছে। আর অপারেশেনের আগে উত্তরবঙ্গের চার জেলায় তিন হাজার কৃষক পরিবারের মাঝে ২৫ কেজি সার বীজ বিতরণের কাজ চলমান। শুয়ে শুয়ে এই কাজগুলো আঞ্জাম দিচ্ছি।
প্রশ্ন : অপারেশনের আগে আপনি উত্তরবঙ্গের সফরে ছিলেন। বলছিলেন নদীভাঙ্গন এলাকায় ঘরনির্মাণ প্রকল্পের কাজ চলছে। ওই প্রকল্পের কাজ কতটুকু?
উত্তর : তুলনামূলক বেশী অসহায়কে প্রাধান্য দিয়ে ১০টি পরিবারের জন্য ১০টি ঘর নির্মাণের কাজ চলমান। আর খাগড়াছড়িতে একটি ঘর নির্মাণ চলছে। দিনাজপুরে পিসব পরিচালিত মাদরাসাগুলোতে কার্পেটের ব্যবস্থা করা হয়েছে। আলহামদুলিল্লাহ।
সাথে সাথে বিছানায় শুয়েই পরিকল্পনা করছি ৩০টি মাদরাসায় কার্পেট এবং ২০০০জন দরিদ্র ও অসহায় ছাত্রদের মাঝে শীতবস্ত্র ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করার উদ্যোগ নিয়েছি। ইনশাআল্লাহ, আল্লাহ ব্যবস্থা করে দিবেন সকলের দোয়া থাকলে।

প্রশ্ন : আমরা জানি উত্তরবঙ্গে শীতের প্রকোপ বেশি। অসহায় শীতার্ত মানুষের জন্য পিসবের কোন পরিকল্পনা হাতে আছে কি?
উত্তর : হুম, অবশ্যই আছে। শরীরটা একটু ভালো হলেই উত্তরবঙ্গ সফরে বের হবো। ৫০০০ জন অসহায় শীতার্ত মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করার উদ্যোগ , যদি আল্লাহ সহায় হোন।
প্রশ্ন : এই অসুস্থ শরীর নিয়েও আপনি বিরামহীন কাজ করে যাচ্ছেন। সত্যিই আপ্লুত হওয়ার মতো।
উত্তর : শোকরিয়া ভাই। আমাদের খোঁজ খবর নেওয়ার জন্য।
এবং দোআর দরখাস্ত আল্লাহ যেন জীবনের প্রতিটি মুহূর্ত ইখলাস ও আমানতের সাথে কাজগুলো করার তাওফীক দান করেন। আমিন।

এই পোষ্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন।

Design & developed by Masum Billah