মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২১, ০৪:৫১ পূর্বাহ্ন

হত্যা মামলা করে আত্মহত্যা বলে ফাঁসলেন বাদী

মেয়েকে হত্যার অভিযোগে জামাতা মো. কাওসার গাজীর বিরুদ্ধে মামলা করেন শ্বশুর জলিল দুয়ারি। সেই জামাতার (আসামি) জামিন আবেদনের শুনানিতে হলফনামা দিয়ে জলিল জানালেন, তাঁর মেয়ে আত্মহত্যা করেছেন। প্রভাবিত হয়ে তিনি ওই হত্যা মামলা করেছিলেন। এখন কাওসারকে মামলা থেকে অব্যাহতি দিলে তাঁর আপত্তি নেই।

এর পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্ট মিথ্যা মামলা করায় জলিল দুয়ারির বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ২১১ ধারায় মামলা করতে পটুয়াখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) নির্দেশ দিয়েছেন। কাওসারের জামিন আবেদনের শুনানি নিয়ে বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিম ও বিচারপতি মো. বদরুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চ্যুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ মঙ্গলবার এ আদেশ দেন।

রাষ্ট্রপক্ষের তথ্যমতে, ২০১৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর পটুয়াখালীর টাউন বহাল গাছিয়া গ্রামের বড় গাজী বাড়িতে কাওসার গাজীর স্ত্রী সাথী আক্তারকে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় ২০১৯ সালের ১ জানুয়ারি অপমৃত্যুর মামলা হয়। এ মামলায় নিহত সাথীর পাঁচ বছর বয়সী মেয়ে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। জবানবন্দিতে বলা হয়, তার বাবা ও দাদা তার মায়ের মাথায় লাঠি দিয়ে আঘাত করে তার মাকে হত্যা করেন। পরে তার বাবা ছাগল বাঁধার রশি দিয়ে তার মায়ের গলায় ফাঁস দেন। মেডিকেলের প্রতিবেদনে সাথীর মাথায় আঘাত ও শ্বাসরোধের কথা রয়েছে। এরপর ওই বছরের ১২ মার্চ সাথীর বাবা জলিল দুয়ারি পটুয়াখালী থানায় কাওসার গাজীসহ চারজনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলাটি করেন। ওই মামলায় গত বছরের ১৪ মার্চ গ্রেপ্তার হন কাওসার।

এই মামলায় গত বছরের ৩১ আগস্ট কাওসারের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়। চলতি বছরের ১৯ অক্টোবর পটুয়াখালীর বিশেষ জজ আদালতে বিফল হয়ে হাইকোর্টে জামিন চেয়ে আবেদন করেন কাওসার। আদালতে কাওসারের পক্ষে আইনজীবী মো. আসাদ মিয়া এবং রাষ্ট্রপক্ষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. বশির উল্লাহ শুনানিতে অংশ নেন।

পরে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বশির উল্লাহ প্রথম আলোকে বলেন, ‘সাথী আত্মহত্যা করেছেন এবং কুচক্রী মহল দ্বারা প্রভাবিত হয়ে হত্যা মামলাটি করেন বলে আদালতে হলফনামা দিয়েছেন জলিল দুয়ারি। কাওসারকে ওই মামলা থেকে অব্যাহতি দিলে তাঁর আপত্তি নেই বলেও এতে উল্লেখ করেছেন জলিল দুযারি। কাওসারের জামিন আবেদনের শুনানিতে এই হলফনামা দাখিল করা হয়। শুনানি নিয়ে হাইকোর্ট মিথ্যা অভিযোগ দেওয়ায় হত্যা মামলার বাদী সাথীর বাবা জলিল দুয়ারির বিরুদ্ধে ২১১ ধারায় মামলা করতে নির্দেশ দিয়েছেন। কাওসারকে অর্ন্তবর্তীকালীন সময়ের জন্য জামিন দেওয়া হয়েছে।’

এই পোষ্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন।

Design & developed by Masum Billah