মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২১, ০৪:৩২ পূর্বাহ্ন

কমান্ডো ছবি সম্পূর্ণ ইসলাম বিরোধী

ছবির ট্রেইলারে দেব, পিছনে কালিমা মম্ভলিত পতাকা

রবিউল আউয়াল- মাওলানা আব্দুল হাই মুহাম্মদ সাইফুল্লাহ। পল্লবীর মসজিদুল জুমা কমপ্লেক্সের খতিব মাওলানা আবদুল হাই মুহাম্মদ সাইফুল্লাহ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে কমপারেটিভ রিলিজিয়াস বিষয়ে পিএইচডি করছেন। সাইফুল্লাহ সাহেব খন্দকার আব্দুল্লাহ জাহাঙ্গীর স্যারের ছাত্র ।

সেখানে তিনি দেবের কমান্ডো সিনেমাকে ইসলামবিরোধী বলে আখ্যা দিয়েছেন। তিনি দীর্ঘ স্ট্যাটাসে লিখেছেন, ‘বাংলাদেশি পরিচালক এর ‘কমান্ডো’ সিনেমার টিজার মুক্তি পেয়েছে ।

তিনি বলেন,

সিনেমা দেখিনা, খবরও রাখিনা, কিন্তু অনলাইন দুনিয়ায় যেহেতু আছি, সিনেমার টিজারের স্ক্রিনশট দেখে কপাল কুঁচকে গেলো। দুনিয়া ব্যাপী ইসলাম নিয়ে যে বহু পর্যায়ের ষড়যন্ত্র চলছে এই সিনেমা তারই অংশ বলে মনে হচ্ছে। ইসলাম আর মুসলমানদের নানান কৌশলে এতদিন দাড়ি, টুপি, জুব্বা, রুমাল, সুরমাকে রাজাকার, বদমায়েশ, চরিত্রহীনদের পোশাক বানিয়ে অপমান করেছে ভারত ও এদেশের মুভি মেকাররা।এবার যৌথ উদ্যোগ নিয়েছে!! নতুন সংযুক্তি, চরিত্র নয় সাবজেক্টই হবে সেটি! কৌশলে বিষয়টিই বাংলা সিনেমার সাবজেক্ট হচ্ছে! মুভি বিশ্বমানে নিয়ে যাওয়া বলে কথা!

কালেমা খচিত পতাকা, পতাকার নীচের অংশে AK-47 এর সিম্বল। পতাকার পেছন থেকে অস্ত্র হাতে বেরিয়ে আসছে কথিত সন্ত্রাসীরা।

ছবিটিতে দেখুন। চারদিকে আরবি লিখা। টিজারের এই অংশে দেখানো হচ্ছে কথিত সন্ত্রাসীরা সুন্নাতি পোষাক পড়ে ‘নারায়ে তাকবির’, ‘আল্লাহু আকবর’ স্লোগান দিচ্ছে।

কালেমাধারীদের পরাজিত করার জন্য “নায়ক দেব” যুদ্ধ করে যাবে এই সিনেমাতে। এই মুভিতে দেখাবে ইসলামি জঙ্গিবাদ দমনে নায়ক দেব এসে হাজির হয়েছে। আর জঙ্গিদের সিম্বল হিসাবে কালিমা খচিত পতাকা ব্যবহার করা হয়েছে। এখানে সুস্পষ্টভাবে ইসলামকে ডিমোনাইজ করা হচ্ছে। ভিলেন বানিয়েছে ইসলামকে। যা ইচ্ছাকৃত ইসলাম বিদ্বেষ। ইসলাম কখনো জঙ্গী ধর্মনয়, একই সাথে ধর্মের নামে কেবল ইসলামেই উগ্রতা আর জঙ্গীবাদ আছে এমন নয়, সব ধর্মেই আছে, তাহলে মুভিতে কেনো ইসলাম আর কালেমার পতাকারই শুধু ব্যাবহার?

পরিচালক এই স্পর্ধা কোথায় পেলো! নাটক সিনেমায় আগে থেকেই খারাপ চরিত্র, ধর্ষক, বদমাশ দেখাতে দাড়ি টুপি চোখে সুরমা লাগায়। আমাদের নিরবতায় এখন ভিলেন চরিত্রে সরাসরি কালিমা ব্যবহার করার সাহস দেখাচ্ছে।

রেকটা বানান লাখ লাখ মুসলিমকে রাখাইন ও পার্শ্ববর্তী দেশের উগ্রবাদীদের দারা হত্যা যুদ্ধাপরাধ ও বাড়িঘর জ্বালিয়ে দেয়া নিয়ে। সেগুলি এত নিকটে ঘটলেও চোখে পড়লো না কেনো? ভন্ডামী সব ইসলাম আর সুন্নাতি পোষাক নিয়ে তাই না!

মাওলানা আব্দুল হাই মুহাম্মদ সাইফুল্লাহর মত দেশের সকল উলামা মাশায়েক প্রতিবাদ করবে বলে আশা করছি, সবায় এখনই প্রতিবাদ করুন ।

তাছাড়া , সেীদি আবর একটি স্বাধীন ইসলামি রাস্ট্র । সেখানে আরবের পতাকা কেন ব্যবহার করবে ?

সেটা নিয়েও বড় প্রশ্ন উঠছে ।

এই পোষ্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন।

Design & developed by Masum Billah