বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ০৬:২৭ অপরাহ্ন

শিরোনাম:
বন্ধ করে দেয়া হলো খার্তুম আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর পাকিস্তানে বিদ্রোহীদের সাথে সংঘর্ষে ৪ পুলিশ সদস্য নিহত কথিত প্রগতিশীলদের বাধা: যুক্তরাজ্যের প্রোগ্রামে যেতে পারেননি মাওলানা আজহারী কবরে থেকেও মামলার আসামি হাফেজ্জী হুজুরের নাতি নরসিংদীতে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ৩০ আমেরিকাসহ পশ্চিমা দেশগুলোর কূটনীতিকদের সঙ্গে আফগান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বৈঠক প্রথমবারের মতো ক্যামেরার সামনে আসলেন মোল্লা ইয়াকুব আজ বন্ধ হতে পারে অনেকের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট এখন শেখ হাসিনার অলৌকিক উন্নয়নের গল্প শোনানো হচ্ছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী পাবজি খেলতে দেয়ার প্রলোভনে শিশুদের বলাৎকার করতেন স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা

জীবিত থেকেও ভোটার তালিকায় তিনি মৃত!

যুবকণ্ঠ ডেস্ক;

বগুড়ার শেরপুরে জীবিত থাকা সত্তে¡ও মৃত দেখিয়ে চূড়ান্ত ভোটার তালিকা থেকে এক আওয়ামী লীগ নেতার নাম কেটে দেওয়া হয়েছে। ওই আওয়ামী লীগ নেতার নাম বদিউজ্জামান বদি। তিনি উপজেলার গাড়ীদহ ইউনিয়নের বনমরিচা গ্রামের বাসিন্দা। এছাড়া স্থানীয় দুই নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে রয়েছেন। পাশাপাশি আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ইউপি সদস্য (মেম্বার) পদের সম্ভাব্য প্রার্থী।

এ ঘটনার জন্য সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের সাবেক মেম্বার আব্দুস সোবহান ও এক নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা সদস্য হেলেনা বিবিকে দায়ী করা হচ্ছে। সেইসঙ্গে জাতীয় নির্বাচন কমিশনের ডাটাবেইস দেখে ঘটনাটি নিশ্চিত হওয়ার পর বুধবার ওই দুই ব্যক্তিকে অভিযুক্ত করে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের ওই নেতা।

অভিযোগে জানা যায়, বিগত ২০১৯ সালে গাড়ীদহ ইউনিয়নের বনমরিচা গ্রামের আব্দুল মোত্তালেব নামের এক ব্যক্তি মারা যান। সেই নামের সঙ্গে আওয়ামী লীগ নেতা বদিউজ্জামান বদির নাম ও জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর জুড়ে দিয়ে ভোটার তালিকা থেকে নাম কাটা হয়। এই তথ্যদাতা হলেন সাবেক ইউপি সদস্য আব্দুস সোবহান। সেটি যাচাই-বাছাইকারী হিসেবে প্রত্যয়ন দিয়ে ফরমে স্বাক্ষর করেন সংরক্ষিত মহিলা সদস্য হেলেনা বিবি। উপজেলা নির্বাচন অফিসের রেকর্ড ফাইলে সেই তথ্যই মিলেছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।
বদিউজ্জামান বদি অভিযোগ করে বলেন, আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ইউপি সদস্য পদে নির্বাচনের জন্য প্রস্তুতি নিয়েছি। সে মোতাবেক ভোটারদের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করে চলছি। তার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে নানামুখি ষড়যন্তে লিপ্ত প্রতিপক্ষ সাবেক ইউপি সদস্য আব্দুস সোবহান। এরই ধারাবাহিকতায় তাকে নির্বাচন থেকে বিরত রাখতেই এই কূটকৌশলের আশ্রয় নেওয়া হয়। ওই দুই জনপ্রতিনিধি যোগসাজস করে নির্বাচন অফিসে মিথ্যা তথ্য দিয়ে চূড়ান্ত ভোটার তালিকা থেকে তার নাম কাটা হয়।

তবে দুইদিন আগে ভোটার তালিকা যাচাই-বাছাই করতে গিয়ে দেখেন তার নাম মৃত ব্যক্তি হিসেবে কাটা হয়েছে। পরে বিষয়টি উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তাকে অবহিত করেন তিনি। সেইসঙ্গে ঘটনার জন্য দায়ী ওই দুই ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দেন। যাতে করে এই ধরণের টাউট-বাটপার প্রকৃতির লোকজনের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হয় বলে মন্তব্য করেন বদি।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আছিয়া খাতুন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের মহিলা সদস্য ও সাবেক ইউপি সদস্যের দেওয়া মিথ্যা তথ্যের ভিত্তিতে ভোটার তালিকা থেকে বদিউজ্জামানের নাম কাটা হয়েছে। এহেন কর্মকান্ডের জন্য ওই দুই ব্যক্তিকে নির্বাচন অফিসে ডাকা হয়েছে ব্যাখ্যা চাওয়ার জন্য। এছাড়া জীবিত ব্যক্তিতে মৃত হিসেবে নাম কাটার বিষয়টি কমিশনকে সুপারিশ আকারে জানানো হবে। সেইসঙ্গে তার নাম প্রতিস্থাপন করা হবে। নিবাচনে প্রার্থী হতে কোনো সমস্যা হবে না বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

এদিকে অভিযুক্ত গাড়ীদহ ইউনিয়নের দুই নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য আব্দুস সোবাহান নিজেকে নির্দোষ দাবি করে বলেন, তিনি কারো নাম কাটার জন্য নির্বাচন অফিসকে কোনো তথ্য বা সুপারিশ করেননি। আসন্ন নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রতিপক্ষ ফায়দা হাসিল করার জন্য তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ এনেছেন বলে দাবি করেন এই সাবেক ইউপি সদস্য।

এক নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা ইউপি সদস্য হেলেনা বিবি এ প্রসঙ্গে বলেন, ভোটার তালিকায় নাম কর্তনের জন্য আমার সুপারিশ ও স্বাক্ষর ব্যবহার করা হয়েছে সেটি জাল ও ভুয়া। এরসঙ্গে আমার নূন্যতম কোনো সম্পৃক্তা নেই। তাই এই ঘটনায় জড়িত দোষী ব্যক্তিদের চিহিৃত করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তিও দাবি করেন তিনি।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved ©2020 jubokantho24.com
Website maintained by Masum Billah