শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৩৪ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম:
ভোলায় রাসূল সা.-কে অবমাননাকারী গৌরাঙ্গকে অবিলম্বে গ্রেফতার করতে হবে: হেফাজত বঙ্গবন্ধু ছিলেন সব দিকেই দক্ষ একজন রাষ্ট্রনায়ক: আ ক ম মোজাম্মেল ইভ্যালিতে প্রতারিতরা কি টাকা ফেরত পাবেন? ভারতে প্রতি ২৪ ঘণ্টায় ৭৭টি ধর্ষণের ঘটনা ঘটছে ‘তালেবান ক্ষমতায় আসার পর এখন আর ঘুষ দিতে হয় না’ ভোলায় মহানবীকে অবমাননার প্রতিবাদে বিক্ষোভ-সমাবেশ আমি প্রেসিডেন্ট হলে ফ্রান্সে মুহাম্মদ নাম নিষিদ্ধ করা হবে এহসান গ্রুপে ৩০ লাখ টাকা খুইয়ে স্ট্রোক করে বৃদ্ধের মৃত্যু দেশকে রক্ষা করতে একটি শক্তিশালী সেনাবাহিনী গঠন করব: আফগান সেনাপ্রধান ৯৬ সাল থেকে এ পর্যন্ত ১০ লাখ মানুষকে ঘর তৈরি করে দিয়েছি: প্রধানমন্ত্রী

কুরআন ও হাদীসের আলোকে মুহাররম ও আশুরা

  • মুফতি মাসউদুর রহমান আল হাবিবী

হিজরী সনের প্রথম মাস হচ্ছে মুহাররম। আবার সম্মানিত চারটি মাসের তৃতীয় মাস হল মুহাররম। মুহাররম শব্দের অর্থ ই হল সম্মানিত।এ মাসের গুরুত্ব ও ফজিলত কোরআন ও হাদিসে বিদ্যমান রয়েছে।যেমন কুরআন শরীফে উল্লেখ রয়েছে- إِنَّ عِدَّةَ الشُّهُورِ عِندَ اللّهِ اثْنَا عَشَرَ شَهْرًا فِي كِتَابِ اللّهِ يَوْمَ خَلَقَ السَّمَاوَات وَالأَرْضَ مِنْهَا أَرْبَعَةٌ حُرُمٌ ذَلِكَ الدِّينُ الْقَيِّمُ فَلاَ تَظْلِمُواْ فِيهِنَّ أَنفُسَكُمْ অর্থ: নিশ্চয় আল্লাহর বিধান ও গননায় মাস বারটি, আসমানসমূহ ও পৃথিবী সৃষ্টির দিন থেকে। তন্মধ্যে চারটি সম্মানিত। এটিই সুপ্রতিষ্ঠিত বিধান; সুতরাং এর মধ্যে তোমরা নিজেদের প্রতি অত্যাচার করো না। হাদিস শরিফে বর্ণিত হয়েছে- عن أبي بكرة عن النبي صلى الله عليه وسلم . السَّنةُ اثنا عَشَرَ شَهرًا، منها أربعةٌ حُرُمٌ، ثلاثٌ متوالياتٌ: ذو القَعْدةِ، وذو الحِجَّةِ، والمحَرَّمُ، ورَجَبُ مُضَرَ الذي بين جُمادى وشَعبانَ অর্থ: বছরে বারটি মাস রয়েছে, তন্মধ্যে চারটি মাস হারাম অর্থাৎ সম্মানিত মাস। তিন মাস পর্যায়ক্রমে ধারাবাহিক জিলকদ, জিলহজ,মুহাররম এবং অপরটি হচ্ছে রজব যা জুমা দা এবং শাবানের মধ্যবর্তী।(বুখারী শরীফ ৪৪০৬) মুহাররম মাসের রোজার গুরুত্ব: মুহাররম মাসের রোজার গুরুত্ব ও ফজিলত অনেক বেশি। বিশেষ করে আশুরার রোজা।এ মাসের রোজা মুস্তাহাব এবং নফল হলেও অন্যান্য নফল রোজা থেকে ব্যতিক্রম। যেমন হাদীস শরীফে বর্ণিত হয়েছে- عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ رَضِيَ اللَّهُ عَنْهُ قَالَ : قَالَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ أَفْضَلُ الصِّيَامِ بَعْدَ رَمَضَانَ شَهْرُ اللَّهِ الْمُحَرَّمُ وأفضل الصلاة بعد الفريضة صلاة الليل ” رواه مسلم অর্থ: রমজানের রোজার পর শ্রেষ্ঠ রোজা হলো আল্লাহর মাস মুহাররমের এবং ফরজ নামাজের পর শ্রেষ্ঠ নামাজ হলো তাহাজ্জুদের নামাজ। (মুসলিম শরীফ ১১৬৩) অন্য হাদীছ শরীফ-এ বর্ণিত আছে- عن ابن عباس رضي الله عنه. قَدِمَ النَّبيُّ صَلَّى اللهُ عليه وسلَّمَ المَدِينَةَ فَرَأَى اليَهُودَ تَصُومُ يَومَ عاشُوراءَ، فَقالَ: ما هذا؟ قالوا: هذا يَوْمٌ صَالِحٌ؛ هذا يَوْمٌ نَجَّى اللَّهُ بَنِي إسْرَائِيلَ مِن عَدُوِّهِمْ، فَصَامَهُ مُوسَى. قالَ: فأنَا أحَقُّ بمُوسَى مِنكُمْ، فَصَامَهُ، وأَمَرَ بصِيَامِهِ. অর্থ: হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস রাদিয়াল্লাহু তা’আলা আনহু সুত্রে বর্ণিত,তিনি বলেন- আল্লাহর রাসূল সাঃ মদীনায় আগমন করলেন অতঃপর দেখলেন ইহুদিরা আশুরার দিন রোজা রাখে। অতঃপর নবীজি জিজ্ঞেস করলেন এটা কিসের রোজা? তারা বলল এটা একটা শ্রেষ্ঠ দিন এদিনে আল্লাহ তালা বনী-ইসরাঈলকে মুক্তি দান করেছেন তাদের শত্রুদের হাত থেকে।ফলে মূসা আলাইহিস সালাম রোজা রেখেছেন।(আল্লাহর শুকরিয়া আদায় করার জন্য) নবীজি বললেন- আমি মুসার ব্যাপারে তোমাদের থেকে বেশি হকদার। অতঃপর নবীজি নিজে রোজা রেখেছেন এবং অন্যদেরকে রাখার আদেশ করেছেন।(বুখারী শরীফ ২০০৪) আশুরা রোযার ফজিলত: আশুরা হল মুহাররম মাসের দশ তারিখ। এদিনের রোজার ফজিলত সম্পর্কে নবীজি হাদিসের মধ্যে ইরশাদ করেছেন- روى مسلم في صحيحه عن أبي قتادة رضي الله عنه أن النبي صلى الله عليه وسلم قال : (صِيَامُ يَوْمِ عَاشُورَاءَ أَحْتَسِبُ عَلَى اللَّهِ أَنْ يُكَفِّرَ السَّنَةَ الَّتِي قَبْلَهُ. অর্থ: আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এরশাদ করেন, আশুরা দিনের রোজার ব্যাপারে আমি আল্লাহর প্রতি আশাবাদী যে, তিনি বিগত এক বছরের গুনাহ ক্ষমা করে দিবেন।(মুসলিম শরীফ) আশুরার রোজা কয়টি: আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আশুরার রোযা একটি রেখেছিলেন, তবে তিনি একথা বলেছিলেন- ইনশাআল্লাহ আমি যদি আগামী বছর পাই তাহলে নবম তারিখেও রোজা রাখব। এ দৃষ্টিকোণ থেকে ফুক্বাহায়ে কেরাম বলেন 10 তারিখের আগে বা পরে আরেকটি রোজা মিলিয়ে রাখা। নিছক কেবল একটি রোজা রাখা কোন ওজর ছাড়া মাকরুহ হবে।

খতিব-ইন্দ্রপুর মির্জা বাড়ি জামে মসজিদ।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved ©2020 jubokantho24.com
Website maintained by Masum Billah