শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:৩২ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম:
ভোলায় রাসূল সা.-কে অবমাননাকারী গৌরাঙ্গকে অবিলম্বে গ্রেফতার করতে হবে: হেফাজত বঙ্গবন্ধু ছিলেন সব দিকেই দক্ষ একজন রাষ্ট্রনায়ক: আ ক ম মোজাম্মেল ইভ্যালিতে প্রতারিতরা কি টাকা ফেরত পাবেন? ভারতে প্রতি ২৪ ঘণ্টায় ৭৭টি ধর্ষণের ঘটনা ঘটছে ‘তালেবান ক্ষমতায় আসার পর এখন আর ঘুষ দিতে হয় না’ ভোলায় মহানবীকে অবমাননার প্রতিবাদে বিক্ষোভ-সমাবেশ আমি প্রেসিডেন্ট হলে ফ্রান্সে মুহাম্মদ নাম নিষিদ্ধ করা হবে এহসান গ্রুপে ৩০ লাখ টাকা খুইয়ে স্ট্রোক করে বৃদ্ধের মৃত্যু দেশকে রক্ষা করতে একটি শক্তিশালী সেনাবাহিনী গঠন করব: আফগান সেনাপ্রধান ৯৬ সাল থেকে এ পর্যন্ত ১০ লাখ মানুষকে ঘর তৈরি করে দিয়েছি: প্রধানমন্ত্রী

নরসিংদীতে নৌকার মানোয়ন চান ৭ বছর জেলখাটা ব্যাংক ডাকাত মহাদেব

যুবকণ্ঠ ডেস্ক:

আগামী ৭ অক্টোবর নরসিংদী সদর উপজেলা চেয়ারম্যান উপ-নির্বাচন ঘিরে চলছে সর্বত্র আলোচনা। চায়ের ষ্টল থেকে বাজার-রাস্তাঘাট,এমনকি মসজিদ ও লোকালয়ে চলছে নির্বাচনের আমেজ। সেই সাথে চলছে নৌকা প্রতীকে দলীয় নমিনেশন পেতে এক ডজনেরও বেশি প্রার্থীদের দৌড়ঝাপ। এ নির্বাচনে ব্যাংক ডাকাতি করে ৭ বছর কারাদন্ডভোগী পবিত্র রঞ্জন দাস মহাদেব ও চাচ্ছেন নৌকার মনোয়ন। এদিকে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগ আজই প্রার্থীর চুড়ান্ত মনোয়ন দিবে বলে জানা গেছে। আর আগামী ১৩ সেপটেম্বর রিটানিং অফিসারের নিকট মনোয়ন পত্র জমা দেয়ার শেষ দিন। সরকার দলীয় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ (নৌকা) এর মনোয়ন ফরম জমা ও ক্রয়ের শেষ দিন গেছে গত বুধবার। সরকার দলীয় ধানমন্ডি ৩ নাম্বার অফিস থেকে মনোয়ন ক্রয় করে জমা দেয়া নামের তালিকায় রয়েছেন এডভোকেট আসাদুজ্জামান( জামান)। ইসহাক খলিব বাবু। আফতাব উদ্দিন ভুঁইয়া। মনির হোসেন ভূইয়া, আনোয়ার হোসেন এবং পবিত্র রঞ্জন দাস মহাদেব, দিপু মাহমুদ,আসাদুজ্জামান খোকা, সুমি সরকার ফাতেমা, আব্দুল বারেক মিয়া,আতাউর রহমান পিয়ার বিলকিস বেগম,সোহানা আক্তার তবে এসব প্রার্থীদের মধ্যেনোয়ন দৌড়ে এগিয়ে আছেন আফতাব উদ্দিন ভুঁইয়া,এ্যাড আসাদুজ্জামান (জামান) পবিত্র রঞ্জন দাস মহাদেব।

তবে পবিত্র রঞ্জন দাস মহাদেবকে নিয়ে সদর এলাকায় আলোচনা ও সমালোচনার ঝড় বইছে।কারণ এই মহাদেব ওরফে পবিত্র রঞ্জন দাস মহাদেব ১৯৮৭ সালে নরসিংদী বাজারে জনতা ব্যাংক ডাকাতি করা কালিন সময়ে অস্ত্র,লুন্ঠিত টাকাসহ জনগন ও পুলিশের হাতেনাতে ধৃত হয়। এবং আদালতের বিচারে তার সাজা হয়। দীর্ঘ বছর সাজা ভোগ করে সে জেল থেকে বের হয়।

এলাকায় সবাই তাকে ডাকাত মহাদেব নামে পরিচিত। তৎকালীন কমিশনার ইমতিজ অরঅে এন্তাজ কমিশনার এই ঘটনার শত শত মানুষেরমত সেও একজন চাক্ষুস সাক্ষী এবং মামলার সাক্ষী হয়েছিলো। সাধারন জনগনের মনে প্রশ্ন এই ডাকাত মহাদেব কি করে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মত একটি সংগঠন থেকে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে দলীয় মনোয়ন পত্র ক্রয় করে এবং দলে জায়গা পায়। উল্লেখ্য সদরের উপজেলা চেয়ারম্যান সফর আলী ভূঁইয়া কিছুদিন পূর্বে অসুস্থ হয়ে মিত্যুবরন করেন। এবং এই আসনটি শূন্য ঘোষনা হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved ©2020 jubokantho24.com
Website maintained by Masum Billah