রবিবার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ০৮:১২ অপরাহ্ন

ট্রাম্পের বাড়িতে এফবিআইয়ের তল্লাশি

যুবকণ্ঠ ডেস্ক:

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বাড়িতে তল্লাশি অভিযান চালিয়েছে কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা (এফবিআই)। স্থানীয় সময় সোমবার (৮ আগস্ট) ফ্লোরিডার পাম বিচে নিজের বিলাসবহুল মার-এ-লাগো রিসোর্টে তল্লাশির বিষয়টি জানান ট্রাম্প। এক বিবৃতিতে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট, এফবিআইয়ের তল্লাশির এ অভিযোগ করেন বলে জানিয়েছে বিবিসি।
এফবিআইয়ের এই অভিযানের সঙ্গে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে সরকারি গোপন নথি সরানোর অভিযোগে মার্কিন বিচার বিভাগের তদন্তের যোগসূত্র থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে চলা তদন্তের মধ্যে এটি অন্যতম।
ট্রাম্প বিবৃতিতে বলেন, ‘এটি জাতির জন্য অন্ধকার সময়। সরকারি সংস্থাগুলোর সঙ্গে কাজ ও সহযোগিতা করার পরও আমার বাড়িতে এই অঘোষিত অভিযানের দরকার ছিল না। এমনকি তারা আমার লকার ভেঙেছে।’
ট্রাম্প আরও বলেন, রিসোর্টটি বর্তমানে অবরুদ্ধ। সেখানে তল্লাশি অভিযান চালানো এবং দখল করে রাখা হয়েছে। তবে কেন অভিযান চালানো হয়েছে তা জানাননি তিনি।
এদিকে আরেক মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন জানিয়েছে, এফবিআইয়ের অভিযানের সময় ট্রাম্প তার এই বাড়িতে ছিলেন না। তবে এফবিআই সেখানে প্রবেশের জন্য একটি সার্চ ওয়ারেন্ট নিয়েছিল। এছাড়া অজ্ঞাত দু’টি সূত্রের বরাত দিয়ে সিএনএন আরও বলছে, গোপন নথি খুঁজে পেতেই এই অভিযান চালানো হয়েছে।
উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট পদে মেয়াদ শেষের পর হোয়াইট হাউস ছেড়ে ২০২১ সালের জানুয়ারি মাস থেকে ডোনাল্ড ট্রাম্প ফ্লোরিডার পাম বিচ দ্বীপের মার-এ-লাগো ভবনটিকে স্থায়ী আবাস হিসেবে ব্যবহার করছেন।
নিউইয়র্ক পোস্টসহ একাধিক মার্কিন সংবাদমাধ্যম ইতোপূর্বে জানিয়েছিল, সমুদ্র তীর ঘেঁষা এই বাড়িটি বরাবরই ট্রাম্পের খুব প্রিয়। প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্বপালনের চার বছর এই ভবনে অনেক সময় কাটিয়েছেন তিনি। প্রতিবছর যুক্তরাষ্ট্রের দীর্ঘ শীতকালের প্রায় পুরো সময় এই ভবনে কাটানোর কারণে অনেকেই মার-এ-লাগোকে ‘শীতকালীন হোয়াইট হাউস’ নামও দিয়েছিলেন।
অবশ্য যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট পদে আসীন হওয়ার আগে নিউইয়র্কের ট্রাম্প টাওয়ারে সপরিবারে থাকতেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে সেখানকার আবাস গুটিয়ে মার-এ-লাগোতে স্থায়ীভাবে বসবাসের যাবতীয় প্রস্তুতি শেষ করেছিলেন তিনি।
১৯২৭ সালে ফ্লোরিডার বিখ্যাত পোস্ট পরিবারের উত্তরসূরী মারজোরি মেরিওয়েদার পোস্ট ২০ একর জমির ওপর রাজসিক এই স্থাপনা তৈরি করিয়েছিলেন। ১৯৮৫ সালে ১ কোটি ডলারের বিনিময়ে এটি কিনে নেন ট্রাম্প। পরে ক্লাবে রূপাান্তর করা হলেও এটিই এখন ট্রাম্পের মূল আবাসস্থল।
ফ্লোরিডার দ্বিতীয় বৃহত্তম ভবন হিসেবে স্বীকৃত মার-এ-লাগোতে ১২৮টি কক্ষ ছাড়াও রয়েছে ২০ হাজার বর্গফুটের একটি নাচঘর, ৫টি টেনিস কোর্ট এবং সুবৃহৎ একটি সুইমিং পুল। আর একটি উল্লেখযোগ্য দিক হলো- ভবনটি থেকে সরাসরি আটলান্টিক মহাসাগরের সৌন্দর্য্য উপভোগ করা যায়।
১৯৮৫ সালে পুরনো এ স্থাপনাটি কেনার পর তাতে ব্যাপক সংস্কার করেন ট্রাম্প। ফ্লোরিডার যে এলাকায় মার-এ- লাগোর অবস্থান, সেই হিসেবে বর্তমানে ভবনটির আর্থিক মূল্য প্রায় ১৬ কোটি ডলার বলে ২০২১ সালের শুরুতে জানিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ম্যাগাজিন ফোর্বস।

সূত্র : বিবিসি, রয়টার্স

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2019 LatestNews
Design & Developed BY ithostseba.com