মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৩, ১২:২৩ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
আওয়ামী লীগকে রাজপথে দেখে ভীত বিএনপি: তথ্যমন্ত্রী বাংলাদেশে প্রভাব বিস্তারে ৩ পরাশক্তি লড়ছে কুরআন পোড়ানোর প্রতিবাদে সুইডিশ পণ্য বর্জনের আহ্বান হেফাজতের ‘বাবার পরিচয়হীন সন্তানের অভিভাবক মা হবে’ মর্মে রায় দেশের ধর্ম ও সংষ্কৃতির সাথে সাংঘর্ষিক আওয়ামী লীগ মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করে: নানক প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে ছাত্র জমিয়ত ঢাকা মহানগর উত্তরের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত ৪ দিন ধরে হাসপাতালে ভর্তি পরিকল্পনামন্ত্রী কাল পাঠ্যবইয়ের ভুল নিয়ে শিক্ষামন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন দেশের আকাশে পবিত্র রজব মাসের চাঁদ দেখা গেছে আমরা চাই দেশে সত্যিকার ইসলামের জ্ঞান চর্চা হোক: প্রধানমন্ত্রী

আলেম-উলামাদের চোখে-মুখে নীরব কান্নার অশ্রু : সৈয়দ শামছুল হুদা

 

বর্তমান সময়টা খুবই খারাপ যাচ্ছে দেশের আলেম সমাজের জন্য। চতুর্দিকে এক ধরনের নীরব কান্না উপলব্দি করছি। অনেক শীর্ষ আলেম যাদের কথা বলার সুযোগ ছিল, উনারাও অজানা ভয়, আতঙ্ক, শঙ্কা ইত্যাদির কারণে চুপসে গেছেন। কওমী ভিত্তিক যে সকল রাজনৈতিক দল আছে, সব জায়গাতেই যেন এক ধরনের হতাশা ছড়িয়ে আছে। অসংখ্য আলেম দীর্ঘ সময় জেল খেটেছেন, অনেকে এখনো জেলে আছেন। সারি সারি মামলা মোকাবেলা করে টিকে থাকার মতো ক’জন আলেমের আর্থিক সামর্থ আছে? এছাড়া সবসময় পেছনে টিকটিকি লেগে থাকার ভয়তো আছেই। মনখুলে কথা বলার সাহসও অনেকে হারিয়ে ফেলেছে।

আজ আমাদের শীর্ষ আকাবির শায়খুল হাদীস আল্লামা আজিজুল হক রহ. এর একটি কথা খুব মনে পড়ছে। ২০০২সালের কথা। তখন ৪দলীয় জোট সরকার ক্ষমতায়। আলেমদের মধ্যে সরকার থেকে অনেক কিছু পাওয়ার আশা। বিশেষ করে মাদ্রাসাগুলো সরকারী সহযোগিতা পাওয়ার কিছু চেষ্টা করছে। তা কখনো মিললেও অনেক সময় পাওয়া যাচ্ছে না এমন একটা প্রেক্ষাপটে শায়খ ফরিদপুরে গেলেন, গোয়ালচামট আশরাফুল উলুম মাদ্রাসার মসজিদে আলোচনা করলেন, চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ তখন মন্ত্রী, শায়খের আগমনে তিনিও মাদ্রাসায় আসলেন। মিম্বরের এক পাশে বসলেন। তখন শায়খকে একজন জিজ্ঞেস করলেন, হুজুর আমরা জোটগত ভাবে ক্ষমতায় আসলাম, এত কষ্ট করলাম, কিন্তু বিনিময়ে আমরা কী পেলাম? তখন হুজুর বলেছিলেন, দেখ, আমরা সরকারকে সমর্থন দিয়েছি কিছু পাওয়ার আশায় নয়, বরং আমরা যে কাজগুলো করছিলাম, লীগ সরকার আমাদেরকে সে কাজে বাধার সৃ্ষ্টি করছিল, তাই আমরা যেন আমাদের কাজগুলো নিরাপদে করতে পারি, এমন পরিবেশ পেলেই আমরা খুশি। আমরা সরকার থেকে কিছুই চাই না। ‘’

তাঁরই সুযোগ্য ছেলে মাওলানা মামুনুল হক সাহেব এমন একটি কথা বলে বিপদে পড়েছিলেন। বর্তমান সময়ে মাদ্রাসাগুলো চালু আছে, রাজনৈতিক দলগুলোও বন্ধ হয়নি। চালু আছে। কিন্তু প্রতিটি মানুষের মুখে যেনো তালামারা। আগের সেই আবেগ নেই। স্বাধীনতা নেই। নানা আঘাতে আজ তারা ক্ষত-বিক্ষত। জানি না, এই অমানিশা আরো কত দীর্ঘ হবে? কবে আসবে এমন একটি ভোর, সম্পূর্ণ মুক্ত বাতাসে বিচরণ করার পরিবেশ ফিরে পাবে দেশের আলেম সমাজ। মুক্ত বাতাসে রাজনীতি করতে পারবে ইসলামী দলগুলো।

 

নিউজটি শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন

All rights reserved © Jubokantho24.com